স্বাস্থ্য

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে ছয়টি ফলের কার্যকারিতা

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে ছয়টি ফলের কার্যকারিতা সম্পর্কে আলোচিত আর্টিকেলে আপনাদের স্বাগতম। অতিরিক্ত চিন্তা কারণে রক্তচাপ বেড়ে যায়।‌ তাই অনেকেই চিন্তা মুক্ত থাকার জন্য বিভিন্ন উপায় নিয়ে ভাবা শুরু করে দেয় আবার কোনরকম স্বস্তিবোধ না পেয়ে ডাক্তারের কাছে চলে যান চিন্তা মুক্ত হওয়ার উপদেশ কিংবা মেডিসিন নেওয়ার জন্য। বর্তমানে প্রায় 90 শতাংশেরও বেশি মানুষ নিজে জানেন না তাদের এই উচ্চ রক্তচাপের কারণ কি। ওষধ সেবন করার ফলেও কমছেনা রক্তচাপের মাত্রা। বর্তমানে ডাক্তাররা শুধু ওষুধ নয় খাবারের তারতম্য ও পরিবর্তন করে দিয়েছে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য। এই রক্তচাপ মানছে না কোনো বয়স এর ভেদাভেদ যেকোনো বয়সেই যেন শুরু হয়ে যাচ্ছে উচ্চ রক্তচাপ।

আজকের এই আর্টিকেলে আপনারা জানতে পারবেন কি কি ফল উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। ডাবের পানি খেলে কতটা উপকৃত হবেন। বেদনা ,কলা ,সবুজ আপেল ,মিষ্টি আলু এবং অ্যাভোকাডো কিভাবে উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

এই উচ্চ রক্তচাপের কারণ অনেকেরই জানা নেই। অতিরিক্ত ওজন, অলস জীবনযাত্রা, অস্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণ, অতিরিক্ত চিন্তা ডায়াবেটিস কিংবা বংশগতভাবে এই উচ্চ রক্তচাপ হতে পারে ধারণা করেন বিশেষজ্ঞরা। ঠিক সময় মত এই রোগ নিয়ন্ত্রণ না করলে পরবর্তীতে চোখের সমস্যা, হৃদপিণ্ড মস্তিষ্ক কিডনি ও শরীরের আরো বিভিন্ন অংশে ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

এজন্য বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়ে থাকেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্প কিছু ফল নিয়মিত খেলে এই উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। তাহলে চলুন বন্ধুরা আজকে আমরা জেনে নেই কোন 6 টি হল নিয়মিত খেলে আমরা উচ্চ রক্তচাপ কন্ট্রোল করতে পারি।

কলার কার্যকারিতা

কলা একটি পরিচিত ও সস্তা ফল। প্রায় সারা বছরই স্বল্পমূল্যে সব সময় হাতের কাছে পাওয়া যায় এই ফল। তবে অনেকেই জানেন না এই কলার আসল উপকারিতা কি। কলায় রয়েছে উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম ও স্বল্প মাত্রায় সোডিয়াম যা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এছাড়া ভিটামিন b, সি, লৌহ শর্করা, ক্যালসিয়াম ও খাদ্যশক্তি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে । তাই আপনি উচ্চ রক্তচাপ কমানোর জন্য প্রতিদিন দুটি করে কলা খেতে পারেন।

ডাবের পানির কার্যকারিতা

ডাবে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম, রাইবোফ্লাভিন, নিয়াসিন, থিয়ামিন, পাইরিডক্সিন এর মত উপকারী সব উপাদান যা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এছাড়া শরীরে জীবাণু ধ্বংস করতেও ডাবের পানির গুরুত্ব অপরিসীম। আপনি যদি নিয়মিত ডাবের পানি পান করেন তাহলে আপনার রক্ত চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

বেদেনার কার্যকারিতা

শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য যে সমস্ত ভিটামিনের প্রয়োজন যেমন ভিটামিন ই, সি, কে প্লেট, পটাশিয়াম এইসব ভিটামিন বেদনায় অন্তর্নিহিত। যা শরীরে রক্ত প্রবাহ স্বাভাবিক করে। গবেষণায় বিশেষজ্ঞরা প্রমাণ করে দিয়েছেন যে কাচা বেদনা অথবা বেদানার রস খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব তাই আপনি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বেদনাকে সঙ্গী করে নিতে পারেন।

সবুজ আপেল এর কার্যকারিতা

আপনি যদি আপনার নিয়মিত খাদ্য মেনুতে আপেল রাতের তাহলে আপনাকে উচ্চ রক্তচাপের কারণে আর ডাক্তারের কাছে যেতে হবে না। আপেলে রয়েছে হাই ফাইবার, সহজে হজম হ‌ওয়ার ক্ষমতা, প্রচুর পরিমাণ এন্টি অক্সিডেন্ট যা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অপরদিকে রয়েছে প্রোটিন পটাশিয়াম আয়রন এবং ভিটামিন কে যা রক্তনালীকে থেকে কোলেস্টেরল দুর ও হার্টে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করে। তাই নিয়মিত অপেল খান উচ্চ রক্তচাপ কমান।

মিষ্টি আলুর কার্যকারিতা

মিষ্টি আলুতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন রয়েছে গ্রামবাংলায় মিষ্টি আলু প্রায় সবসময়ই পাওয়া যায়। এই মিষ্টি আলুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, বি² বি⁶, ডি ,ই সমৃদ্ধ ভিটামিন রয়েছে। মিষ্টি আলুর উপাদানসমূহ রক্তে সুগারের পরিমাণ কমিয়ে দেয়। ইলেকট্রোলাইসিস এর ভারসাম্য বজায় রাখেন।

অ্যাভোকাডো এর কার্যকারিতা

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করেঅ্যাভোকাডো নামক এই ফল। যা শরীরের ক্লান্তি দূর করে আরামদায়কভাবে ঘুমাতে সহায়তা করে। রক্তের সুগার লেবেল কে নিয়ন্ত্রণ করে। তাই আপনি চাইলে এই ফলটি নিয়মিত খেয়ে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে পারেন। ‌

আমাদের আর্টিকেল যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন আমরা আরো আপনাদের প্রয়োজনীয় আর্টিকেল দেওয়ার চেষ্টা করব। সবার আগেই আমাদের আর্টিকেল পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি বুকমার্ক করে রাখতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.