টিপস

এটিএম বুথে ছেঁড়া নোট পেলে করণীয়

ছেঁড়া নোট পেলে করণীয়: সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা বর্তমানে এটিএম বুথ থেকে কার্ড দ্বারা টাকা তোলার বিষয়টি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। খুব সহজেই যেকোনো স্থান থেকে ব্যাংক একাউন্ট থেকে টাকা তোলা যায় বলে এটিএম বুথ এর ব্যবহার দিনদিন বেড়েই চলেছে। বন্ধুরা পূর্বের টিপস এ আমরা এটিএম বুথ থেকে জাল নোট পেলে কি করণীয় তা সম্পর্কে আমরা ইতিমধ্যে জেনেছি। তবে কি করবেন যদি এটিএম বুথে ছেঁড়া নোট পান? তাই আপনারা আমাদের আজকের এই পোস্টে জানবেন এটিএম বুথে ছেঁড়া নোট পেলে করণীয় সম্পর্কে তথ্য।

আপনার যদি কোনো ব্যাংকে একাউন্ট থাকে, তাহলে আপনার কাছে হয়ত ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ড রয়েছে। আর ডেবিট কার্ড আছে মানে হলো আপনি অবশ্যই এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলেন। এখন টাকা তুলতে গিয়ে দেখলেন উত্তোলন করা টাকার মধ্যে ছেঁড়া নোট ও রয়েছে। এটিএম বুথে পাওয়া ছেঁড়া নোট নিয়ে করনীয় সম্পর্কে এই পোস্টে আলোচনা করা হবে।

এটিএম বুথে ছেঁড়া নোট পেলে করণীয়

বন্ধুরা জরুরি প্রয়োজনে এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলতে গিয়ে যদি ছেঁড়া টাকা পেয়ে থাকেন তাহলে চিন্তার কোনো কারণ নেই। আমাদের এই পোস্টে এটিএম বুথে ছেঁড়া টাকা পেলে কি করা উচিত সে সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে, তাহলে চলুন বন্ধুরা জেনে নেওয়া যাক। ছেঁড়া নোট পেলে করণীয়:

  • বন্ধুরা টাকা তোলার পর এটিএম বুথ থেকে বের হওয়ার আগে অবশ্যই আপনাদের প্রাপ্ত টাকা জাল বা ছেঁড়া কিনা তা চেক করে নিতে হবে।
  • যদি প্রাপ্ত টাকার মধ্যে ছেঁড়া নোট থাকে তা পকেটে ঢুকাবেন না বা বুথ থেকে বের হবেন না। টাকার পরিমাণ যতই হোক না কেনো, সবসময় এই একই নিয়ম মেনে চলবেন।
  • এবার ছেঁড়া নোটটি দুই হাত ব্যবহার করে এটিএম মেশিনের উপরে থাকা ক্যামেরার সামনে এমনভাবে ধরতে হবে যাতে ক্যামেরাতে নোটের ছেঁড়া অংশ ও নোট এর নাম্বার দেখা যায়। একাধিক ছেঁড়া নোট পেলে প্রতিটি নোট আলাদা করে ক্যামেরার সামনে ধরতে হবে।
  • এই বিষয়টি দ্বারা প্রাপ্ত ছেঁড়া নোট যে এটিএম থেকে এসেছে তার প্রমাণ হিসেবে কাজ করে।
  • বুথ থেকে বের হবেন না, বাহিরে দায়িত্বে নিয়োজিত সিকিউরিটি গার্ডকে ডাকে ছেঁড়া নোট পাওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে গার্ডকে জানান৷ গার্ড এর কাছে থাকা নোটবুকে তিনি গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় সকল তথ্য নোট করে নিবেন।
  • এটিএম বুথে থাকা মেশিনের নাম্বার বা পরিচিতি সংগ্রহ করে আপনাদের ব্যাংকের নিকটস্থ শাখায় চলে যান। ব্যাংকের শাখায় অফিস আওয়ারের মধ্যে যেতে পারলে সরাসরি ক্যাশ কাউন্টারে অভিযোগ জানাতে পারেন। অভিযোগ দাখিলের সময় প্রয়োজনীয় সকল তথ্য প্রদান করে কর্মরত অফিসারকে সহায়তা করবেন।
  • আগে থেকে যদি মোবাইলের মেসেজ এলার্ট চালু থাকে তাহলে টাকা তোলার প্রমাণ হিসেবে ফোনে আসা এসএমএস ও আপনারা দেখাতে পারেন।
  • বন্ধুরা প্রাপ্ত ছেঁড়া নোট যদি অল্প পরিমাণে ছেঁড়া হয়ে থাকে, তবে ব্যাংকের শাখায় থাকার কাউন্টার থেকেই উক্ত নোট পরিবর্তন করে নতুন নোট প্রদান করা হবে।
  • কিন্তু প্রাপ্ত নোটের অবস্থা বেশি গুরুতর হলে সেক্ষেত্রে আপনাদের কে প্রথমে একটি ফরম পূরণ করে অভিযোগ করতে হবে।
  • অভিযোগ দাখিলের পর আপনাদের ছেঁড়া নোট পরিবর্তন করে নতুন নোট প্রদান করা হবে।

বন্ধুরা এভাবে এটিএম বুথ থেকে পাওয়া ছেঁড়া টাকা বেশ সহজে আপনারা পরিবর্তন করতে পারবেন ব্যাংকের শাখা থেকে। উল্লেখ্য যে ছেঁড়া নোট এর ক্ষেত্রে একেক ব্যাংকের নিয়ম একেক রকম হতে পারে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে ছেঁড়া নোট সরাসরি ব্যাংক শাখা থেকে তৎক্ষণাৎ পরিবর্তন করে দেওয়া হয়।

কিছু ব্যাংকে অভিযোগ প্রদান করে তবে ছেঁড়া টাকা পরিবর্তন করে দেওয়া হয়। অনেক ব্যাংকে আবার পরবর্তী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে প্রাপ্ত ছেঁড়া নোট এর অর্থ ব্যাংক একাউন্টে ক্রেডিট করে দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.