খাদ্যফিটনেসসুস্বাস্থ্য

কলার উপকারিতা এবং পুষ্টি গুনাগুন

কলা খুবই পুষ্টিকর এবং সহজলভ্য একটি ফল।কলা পুষ্টি গুনাগুন এর জন্য সকলের কাছে পছন্দের একটি ফল। কলায় রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম সহ অনেক পুষ্টিসমৃদ্ধ উপাদান। এজন্য সব বয়সের মানুষের উচিত নিয়মিত কলা খাওয়া। তাছাড়াও কলায় রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা।

কলার উপকারিতা এবং পুষ্টি গুনাগুন


হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে কলা

হৃদপিন্ডের জন্য কলা অত্যন্ত উপকারী একটি ফল। যাদের হৃদরোগ রয়েছে তাদের অবশ্যই উচিত নিয়মিত কলা খাওয়া। কলায় থাকা পটাশিয়াম হৃদযন্ত্র কে ভালো রাখতে সহায়তা করে। গবেষণায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত কলা খায় তাদের হার্ট অ্যাটাক এর ঝুঁকি অনেকটাই কম। এজন্য হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে নিয়মিত কলা খেতে কখনোই অবহেলা করবেন না।

আরো পড়ুন…..

কিডনি ভালো রাখতে কলা

আমাদের শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ কিডনি সুস্থ এবং ভালো রাখা খুবই জরুরী। বিশেষজ্ঞদের মতে নিয়মিত কলা খেলে কিডনিতে পাথর জমার সম্ভাবনা থাকে না বললেই চলে। তাই কিডনি সুস্থ এবং ভালো রাখার জন্য নিয়মিত কলা খাওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।

আরো পড়ুন…..

হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে কলা

হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে বা খুবই কার্যকরী একটি ফল। কলায় রয়েছে ফাইবার সহ আরো অনেক পুষ্টিসমৃদ্ধ উপাদান যা আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। যাদের হজম শক্তি দুর্বল তারা নিয়মিত কলা খেলে ভালো ফলাফল পাবে।  তাছাড়াও কলা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো ফল।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে কলা 

আমাদের শরীর সুস্থ থাকার জন্য অবশ্যই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি থাকা দরকার।আমাদের শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা না থাকলে সহজেই আমাদের শরীরে ছোট ছোট রোগের সংক্রমণ হবে। তাই সুস্থ থাকতে অবশ্যই আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। কলায় নানা রকম পুষ্টি উপাদান থাকার কারণে সহজে আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে কলা

একটি গবেষণায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত কলা খায় তাদের ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকটাই কম।কলা ক্যান্সার রোগের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করে। এছাড়াও কলা আমাদের  রক্তের শ্বেত কণিকা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে, ফলে ব্লাড ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায়। তাই ক্যান্সার রোগের ঝুঁকি কমাতে এবং প্রতিরোধ করতে অবশ্যই কলা খাওয়া উচিত।

ত্বক ভালো রাখতে কলা

কলা আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী একটি ফল। নিয়মিত কলা খেলে অনেক ধরনের চর্মরোগ থেকে সহজেই রক্ষা করা যায়।তাছাড়াও কলা আমাদের ত্বক মসৃণ এবং কোমল রাখতে সহায়তা করে। কলায় ফ্যাটি  জাতীয় উপাদান থাকার কারণে ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

আরো পড়ুন….

ওজন নিয়ন্ত্রণে কলা

কলায় পটাশিয়াম এবং প্রচুর ফাইবার থাকার কারণে খাদ্য গ্রহণ চাহিদা কমিয়ে দেয়। তাই এটা স্বাভাবিক খাদ্যগ্রহণ কম হলে অবশ্যই দ্রুত ওজন কমবে। এক্ষেত্রে যাদের অতিরিক্ত ওজন কমানো নিয়ে সমস্যা তারা নিয়মিত কলা খেতে পারেন। এতে  সহজেই অতিরিক্ত ওজন কমে নিয়ন্ত্রণে আসবে।

এছাড়াও কলায় রয়েছে আরো অনেক অসাধারণ উপকারিতা এবং পুষ্টিগুণ। তাই সুস্বাস্থ্যবান থাকতে এবং শরীরকে রোগমুক্ত রাখতে অবশ্যই নিয়মিত কলা খাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *