টিপসবিউটি

ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসিয়াল করার উপায়

ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসিয়াল-সুপ্রিয় ভিজিটর বন্ধুরা আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানিয়ে শুরু করছি আমাদের আজকের টিপস ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসিয়াল। ফেসিয়াল শব্দটা শুনে মনে হয় কিছু একটা ঘটতে চলেছে আমাদের চারপাশে, এমনটি ভাববার কোন কারণ নেই। বন্ধুরা ত্বকে চমক আনতে ক্লেনজিং, টোনিং এবং ময়শ্চারাইজিংয়ের কোনো বিকল্প নেই। এক কথায়, এই তিন স্টেপেই আপনাদের ত্বক পুরোপুরি পরিষ্কার করে দিবে। আর এই মুখ পরিষ্কার করার পদ্ধতির নামই হল ফেসিয়াল। নিজের স্কিন টাইপ জেনে সেই মতো পরিষ্কার করলেই হয়ে যাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসিয়াল। ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসিয়াল করার উপায় নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো:

ক্লেনজিং:

বন্ধুরা আপনাদের নরমাল স্কিন হলে প্রথমে কটন বল ঠাণ্ডা দুধে চুবিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিতে হবে। তারপর আরও একবার পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিতে হবে। ড্রাই স্কিন হলে শসার রস ও ঠাণ্ডা দুধের মিশ্রণ কটন বলে ডুবিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। অয়েলি স্কিনে বেশি ময়লা জমে বলে ঠাণ্ডা দুধের সঙ্গে পুদিনাপাতার রস মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপর আপনাদের কটন বল দিয়ে, সেই মিশ্রণে ডুবিয়ে ভালো করে ক্লেনজিং করে নিতে হবে। কম্বিনেশন স্কিনের ক্ষেত্রে ঠাণ্ডা দুধে কটন বল ভিজিয়ে পরিষ্কার করলেই উপকার পাবেন।

স্ক্রাবিং:

বন্ধুরা নরমাল স্কিন হলে কমলালেবুর খোসা ও চালের গুঁড়ার পেস্ট অথবা বার্লি ও ঠাণ্ডা দুধের মিশ্রণ ব স্ক্রাবার হিসেবে আপনারা ব্যাবহার করতে পারেন। ড্রাই স্কিনের ক্ষেত্রে চালের গুঁড়া ও দুধের সরের সঙ্গে একটু মধু মিশিয়ে নিতে পারেন।

অয়েলি স্কিনে মসুর ডালবাটা ও কমলালেবুর খোসা দিয়ে স্ক্রাব করা যায়। কম্বিনেশন স্কিনের ক্ষেত্রে কর্নফ্লাওয়ার ও এক চিমটে কর্পূর কুসুম গরম পানিতে মিশ্রণ করে স্ক্রাবিং করতে পারবেন। মনে রাখতে হবে, স্ক্রাবিংয়ের সময় হালকা প্রেসার দিয়ে সার্কুলার মুভমেন্টে ম্যাসাজ করতে হবে।

টোনিং:

পাঠক বন্ধুরা নরমাল ও ড্রাই স্কিনের জন্য শুধু গোলাপজল দিয়ে টোনিং করলেই হবে। অয়েলি স্কিনে পুদিনা পাতা, শসা ও লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে মাখতে পারেন। কম্বিনেশন স্কিনের জন্য টমেটো রস, শসার পেস্ট ও গোলাপজলের মিশ্রণ ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে।

ময়শ্চারাইজিং:

বন্ধুরা আপনারা চাইলে নরমাল ও কম্বিনেশন স্কিনে অ্যালোভেরা জেল ও সামান্য মধু মিশিয়ে লাগিয়ে নিতে পারেন। অয়েলি স্কিনে আপেল কুচিয়ে তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে লাগিয়ে পরে ধুয়ে নিতে হবে। ড্রাই স্কিনে মধুর সঙ্গে নারকেল তেল মিশিয়ে লাগালে বেশ উপকার পাবেন।

নরমাল স্কিনের ফেসপ্যাক:

প্রথমে দুই চামচ বেসন, দুই চামচ মধু, কচি গাজর পেস্ট ও গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানির ঝাঁপটা দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

কম্বিনেশন স্কিনের ফেসপ্যাক

আপনারা চাইলে গমের ছাতু, মধু, হাফ চামচ বাদাম তেল ও পানি মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে ২০ মিনিট পর ধুয়ে নিতে পারেন।

অয়েলি স্কিনের ফেসপ্যাক

বন্ধুরা ‌মসুর ডাল ত্বকের মসুর ডালবাটার সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ, শসার রস, লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগান। ২৫ মিনিট পর হালকা কুসুম পানিতে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

ড্রাই স্কিনের ফেসপ্যাক

এক টুকরো পাউরুটি দুধে ভিজিয়ে নরম করে তার সঙ্গে পাকা কলা চটকে একটা প্যাক বানাতে পারেন। এতে এক চামচ মধু ও এক চামচ চন্দন গুঁড়া মিশিয়ে নিয়ে ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

পরিশেষে বন্ধুরা আজকে এই পর্যন্তই এছাড়া আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে কমেন্ট সেকশনে গিয়ে কমেন্ট করুন। এবং আমাদের ওয়েবসাইটটি যাতে খুঁজে পেতে কোন সমস্যা না হয় সেজন্য বুকমার্ক করে রাখতে পারেন। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করব আপনাদের সঠিক তথ্য দিয়ে সেবা করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.