সমস্যা এবং সমাধান

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই প্রক্রিয়া – Check Birth Registration Online

ভিজিটর বন্ধুরা আজকে আমি আরও একটি নতুন সমস্যার সমাধান নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে একটি শিশু তার প্রাপ্ত বয়সে দেশের নাগরিকত্ব ও জাতীয়তা পেয়ে থাকে। আশা করব আপনাদের ভালো লাগবে চলুন তাহলে আজকে শুরু করি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই প্রক্রিয়া, জন্ম সনদ কিভাবে ডাউনলোড করব, জন্ম তথ্য প্রদানকারী কারা। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই এর যাবতীয় তথ্য নিচে দেওয়া হল-

জন্ম নিবন্ধন কি?

জন্ম নিবন্ধন হচ্ছে একটি শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরে তাকেই দেশের একজন সদস্য মানার জন্য সরকারি খাতায় যে রেজিস্ট্রেশন করা হয় তাকে জন্ম নিবন্ধন বলে। জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে একটি শিশু তার প্রাপ্ত বয়সের দেশের নাগরিকত্ব ও জাতীয়তা পেয়ে থাকে। একটি দেশের নাগরিক হিসেবে পরিচয় পাওয়ার আইনগত প্রথম ধাপ হচ্ছে জন্ম সনদ। এই সনদ একটি শিশুর আঠারো বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত জাতীয় পরিচয় পত্র হিসেবে কাজ করে। এই সনদের মাধ্যমে প্রাইমারি ভর্তি ও সেকেন্ডারি পর্যন্ত পড়াশুনার ক্ষেত্রে সকল কাজে ব্যবহার করা হয়।

2006 সালে বাংলাদেশ সরকার বয়স, জাতিগোষ্ঠী ধর্ম নির্বিশেষে সকল বাংলাদেশের জন্মগ্রহণকারী প্রত্যেককেই বাধ্যতামূলক জন্ম সনদ করার নির্দেশ দিয়েছে। বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশ হওয়ার কারণে 2010 সাল থেকে অনলাইনে জন্ম সনদ নিবন্ধনের কার্যক্রম চালু করে দিয়েছে। বর্তমানে 100 ভাগ্যেই তার আওতাধীন অবস্থায় এসেছে।

বাংলাদেশ সরকার বর্তমানে স্কুল ভর্তির ক্ষেত্রে জন্ম সনদ থাকা বাধ্যতামূলক করেছে তা না হলে স্কুলে ভর্তি করানো সম্ভব না। তাই আজকে আমি আপনাদের জানাব কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে জন্মনিবন্ধন করার প্রক্রিয়া, জন্ম সনদ কিভাবে ডাউনলোড করব।

জন্ম নিবন্ধন কি কি কাজে লাগে?

ক) পাসপোর্ট ইস্যু খ) বিবাহ নিবন্ধন গ) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি ঘ) সরকারী, বেসরকারী বা স্বায়ত্বশাসিত সংস্থায় নিয়োগদান ঙ) ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু চ) ভোটার তালিকা প্রণয়ন ছ) জমি রেজিষ্ট্রেশন জ) ব্যাংক হিসাব খোলা ঝ) আমদানি ও রপ্তানী লাইসেন্স প্রাপ্তি ঞ) গ্যাস, পানি, টেলিফোন ও বিদ্যুৎ সংযোগ প্রাপ্তি ট) ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (টিআইএন) প্রাপ্তি ঠ) ঠিকাদারী লাইসেন্স প্রাপ্তি ড) বাড়ির নক্সা অনুমোদন প্রাপ্তি ঢ) গাড়ির রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্তি ন) ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্তি ও ত) জাতীয় পরিচয়পত্র প্রাপ্তি।

জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া

জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করার জন্য নিবন্ধকের কাছে প্রত্যয়নপত্র জমা করতে হবে। অথবা জন্ম নিবন্ধন এর নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে সেখান থেকে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধনের ওয়েবসাইটটি হল br.lgd.gov.bd । ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন এ ক্লিক করলে একটি ফরম চলে আসবে সেখানে অবশ্যই জন্মের সঠিক তথ্য বসাতে হবে এবং পূরণ করা শেষ হয়ে গেলে সেটি আপলোড করতে হবে। যদি আপনারা সঠিক নিয়মে ফরমটি পূরণ করে আপলোড করে থাকেন তাহলে সেখানে দেওয়া নির্দিষ্ট নাম্বারে মেসেজ চলে যাবে।
পরবর্তীতে আপনারা ১৫ দিন পরে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন অথবা আপনারা অনলাইন থেকে জন্ম সনদ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এছাড়াও আপনারা পিডিএফ এর মাধ্যমে আপনাদের নিবন্ধন করা জন্ম সনদের আপডেট সম্পর্কে জানতে পারবেন।
নিবন্ধনাধীন ব্যক্তির ৫ বৎসরের মধ্যে আবেদন করা হলে-
  • তথ্য সংগ্রহকারীর প্রত্যয়ন, অথবা
  • ইপিআই কার্ডের সত্যায়িত অনুলিপি, অথবা
  • সংশ্লিষ্ট চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্র বা উক্ত প্রতিষ্ঠান হইতে প্রাপ্ত জন্ম সংক্রান্ত সনদের সত্যায়িত অনুলিপি, অথবা
  • নিবন্ধক যেরূপ প্রয়োজন মনে করেন জন্ম সংক্রান্ত সেরূপ অন্য কোন দলিলের সত্যায়িত অনুলিপি, অথবা
  • তথ্য সংগ্রহকারী হিসাবে নিবন্ধক কর্তৃক নির্দিষ্টকৃত কোন এনজিও কর্মীর প্রত্যয়ন।

নিবন্ধনাধীন ব্যক্তির পাঁচ বছরের পরে আবেদন করা হলে-

সঠিক বয়স প্রমাণ করার জন্য এমবিবিএস ডাক্তারের এবং স্থায়ী জন্মস্থানের প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর অথবা সদস্যের প্রত্যয়নপত্র লাগবে। বয়স বা জন্মে সঠিক প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান শিক্ষক অথবা তথ্য সংগ্রহকারী কর্মীদের প্রত্যয়য়ন। বয়স ও জন্মস্থান প্রমাণের জন্য ইপিআই কার্ড বা পাসপোর্ট বা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা কোনো চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান জন্ম সংক্রান্ত ছাড়পত্র বা উক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রাপ্ত জন্ম সনদের সত্যায়িত অনুলিপি। তথ্য সংগ্রহকারী এনজিওকর্মীর প্রত্যায়ন পত্র।

জন্ম তথ্য প্রদানকারী কারা?

অবশ্যই শিশুর পিতা মাতা অথবা অভিভাবক শিশুর জন্মের 45 দিনের মধ্যেই জন্ম সংক্রান্ত সকল তথ্যাবলী নিবন্ধকের কাছে প্রদানের জন্য দায়ী থাকবেন। এছাড়া আপনারা যেসব ব্যক্তির কাছে তথ্য প্রদান করতে পারেন সেগুলো হচ্ছে- ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের কাছে অথবা গ্রাম পুলিশের কাছে। পৌরসভার কাউন্সিলর এর কাছে। স্বাস্থ্যকর্মী কিংবা পরিবার কল্যাণ কর্মীদের কাছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এনজিও কর্মীদের কাছে। জেলখানায় জন্মের ক্ষেত্রে জেল সুপারের কাছে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই প্রক্রিয়া

জন্ম সনদ নিবন্ধন এর নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট bdris.gov.bd ওয়েবসাইটে ভিজিট করে জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বার জন্ম তারিখ নাম স্থান ও আপনাদের ব্যক্তিগত তথ্য গুলি গুলো যাচাই করে নিতে পারেন।
আমাদের পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন আর নিয়মিত তথ্য পেতে আমাদের এই ওয়েবসাইটটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.