ফিটনেসসুস্বাস্থ্য

দ্রুত মোটা হওয়ার সহজ উপায়

বেশির ভাগ যে কোন ব্যক্তির একটাই ইচ্ছে থাকে সেটা হচ্ছে মোটা হওয়া। তবে শুরুতেই একটা কথা বলে রাখি যে মোটা হওয়া ভালো নয়। অনেকেই বলবে অতিরিক্ত মোটা হওয়া ভালো নয়। কিন্তু সত্যিকার অর্থে স্থুল বা মোটা স্বাস্থ্য খুবই ক্ষতিকর।

দ্রুত মোটা হওয়ার সহজ উপায়
দ্রুত মোটা হওয়ার সহজ উপায়


তবে একেবারে চিকন বা রোগা স্বাস্থ্যও ভালো নয়। এক্ষেত্রে আপনার উচিত স্বাস্থ্য ফিট রাখা বা সুস্বাস্থ্যবান থাকা। কারণ একেবারে রোগা এবং দুর্বল স্বাস্থ্য ভালো নয়। এ জন্য সুস্থ থাকার ক্ষেত্রে সুস্বাস্থ্যবান থাকা অত্যন্ত জরুরী তবে মোটা হওয়া একদমই ভালো নয়।


কারণ আপনি চাইলেই মোটা হতে পারবেন তবে মোটা হওয়ার পরে আপনি আবার ওজন কমানো এবং স্থলে শরীর নিয়ে বেশ চিন্তিত অবস্থায় থাকবেন। তাছাড়াও নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

এজন্য আপনাদের উদ্দেশ্যে বলল আপনারা কখনোই মোটা বা স্থুল স্বাস্থ্য কাম্য করবেন না সব সময় সুস্থ এবং সুস্বাস্থ্যবান থাকার চেষ্টা করবেন।

আরো পড়ুন….


তবে যারা খুব চিকন এবং রোগা তাদের অবশ্যই স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটানো দরকার। কারণ রোগা পাতলা শরীর খুবই দুর্বল থাকে এবং শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটাই কম থাকে। ফলে যেকোনো রোগে সহজেই আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। স্বাস্থ্য আমাদের একটি অমূল্য সম্পদ তা আমরা সবাই জানি।

তবে যারা খুব চিকন এবং রোগা তাদের চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই আপনারা চাইলে খুব অল্প সময়ের ভিতরে আপনাদের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটাতে পারেন। তবে এজন্য আপনাদের অবশ্যই স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হতে হবে এবং কিছুটা সময় ধৈর্য ধারণ করে অপেক্ষা করতে হবে।

স্বাস্থ্য দ্রুত মোটা করার জন্য খাবার

চিকন এবং রোগা পাতলা স্বাস্থ্য দ্রুত মোটা এবং সুস্বাস্থ্যবান করতে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। আর অবশ্যই আপনি পূর্বে যে পরিমাণ খাবার খেতেন তার তুলনায় বেশি খাদ্য খেতে  হবে।

দ্রুত মোটা হওয়ার সহজ উপায়


তবে এক্ষেত্রে একটি সবার কমন সমস্যা হচ্ছে খাবারের প্রতি রুচি না থাকা। আর এই সমস্যা সমাধানের জন্য বেশিরভাগ মানুষই রুচি বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন ধরনের ঔষধ সেবন করে থাকেন। এটা একদমই উচিত নয় এবং এগুলো অনেক ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

তাই আমার অনুরোধ থাকবে খাবারের রুচি বৃদ্ধির জন্য কোন প্রকার ওষুধ সেবন না করার জন্য। আপনি খাবার খাওয়ার থেকে অবশ্যই মনোযোগ দেবেন এবং পূর্বের তুলনায় বেশি খাওয়ার চেষ্টা করবেন তাহলেই পারবেন এজন্য আপনাকে কোন প্রকার ঔষধ না খেলেও হবে।


তবে খাবার খাওয়ার সময় অবশ্যই খাদ্য ভালোভাবে চিবিয়ে খাবেন। আর কখনোই টিভি দেখতে দেখতে বা কোনও কাজ করা অবস্থায় খাবার খাবেন না। খাবার খাওয়ার সময় সব ধরনের কাজ এবং টিভি দেখা অথবা ফোন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন।

অনেকেই খাবার শেষে অতিরিক্ত পানি পান করে যা পেটে গ্যাস সৃষ্টি করার জন্য দায়ী। খাবার খাওয়ার পর পরই অতিরিক্ত পানি একদমই পান করবেন না। অল্প পরিমাণে পানি পান করবেন এবং খাবার খাওয়ার কমপক্ষে আধাঘন্টা পর আপনি বেশি পরিমাণে পানি পান করবেন।


সব সময় অবশ্যই চেষ্টা করবেন বাহিরের সকল খাবার এড়িয়ে চলার এবং বাসার পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

কারণ বাহিরের খাবারগুলো খুবই ক্ষতিকারক এজন্য আমাদের সুস্থ থাকতে হলে অবশ্যই বাহিরের খাবার গুলো পরিহার করতে হবে।


আর মোটা হওয়ার জন্য আপনাকে যে শুধু মাছ মাংস খেতে হবে এমনটা নয়। কারণ মাছ মাংস ছাড়া অনেক পুষ্টি সমৃদ্ধ শাকসবজি এবং ফলমূল রয়েছে যা খুবই কম মূল্যের। কিন্তু সেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী।

আর খাবার খাওয়ার সময় অবশ্যই  অতিরিক্ত ভাজাপোড়া খাবার যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলবেন। কারণ ভাজাপোড়া খাবার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক।


স্বাস্থ্য মোটা এবং সুস্থ রাখতে আপনি কি একসাথে প্রচুর খাদ্য গ্রহণ না করে, তিন বেলার জায়গায় চারবেলা বা আরো বেশি খেতে পারেন। এতে আপনার স্বাস্থ্যের দ্রুত উন্নতি হবে। প্রত্যেক বেলা খাবার খাওয়ার মাঝে তিন থেকে চার ঘণ্টা বিরতি নেয়া ভালো।

তবে আপনি একটা না কিছুক্ষণ পর পর খাবার খেতে থাকলে তেমন একটা উন্নতি পাবেন না। সুস্বাস্থ্যবান থাকতে এবং স্বাস্থ্য কিছুটা মোটা করতে সাধারণ কিছু খাবারই যথেষ্ট যেমন:

আলু

আলু খুবই সাধারন একটি খাবার হলেও স্বাস্থ্যের জন্য এটি অত্যন্ত ভালো। প্রতিদিন প্রায় সবাই কম বেশি আলু খেয়ে থাকে। আলু একটি ফ্যাট জাতীয় খাদ্য যা শরীর দ্রুত মোটা করতে সাহায্য করে। তাছাড়াও আলুতে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট এবং কমপ্লেক্স সুগার যা আপনাকে দ্রুত মোটা করতে এবং ওজন বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।


তবে স্বাস্থ্য মোটা করার জন্য আলু সিদ্ধ করে খাওয়া খুবই উপকারী। স্বাস্থ্য মোটা করতে অবশ্যই আপনি পূর্বের তুলনায় দ্বিগুণ আলু খাবেন এতে খুব দ্রুত ফলাফল পাবেন।

ডিম

ডিম এমন একটি প্রাণিজ আমিষ জাতীয় খাবার যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এবং ডিমে অনেক পুষ্টিসমৃদ্ধ উপাদান রয়েছে যা আমাদের স্বাস্থ্যের প্রায় সকল রকমের পুষ্টি চাহিদা পূরণ করতে পারে।

ডিমে রয়েছে উচ্চমাত্রার প্রোটিন ফ্যাট এবং ভালো মানের ক্যালরি। আপনার স্বাস্থ্যের দ্রুত উন্নতি ঘটাবে এবং দ্রুত ওজন বৃদ্ধি করবে।


ভালো ফলাফলের সাথে অবশ্যই ডিম সিদ্ধ করে খাবেন কাঁচা অবস্থায় ডিম খাওয়া উচিত নয় এতে অনেক রকম সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

আর তেলে ভাজি করে বা অতিরিক্ত ভাজি অবস্থায় ডিম খাওয়া উচিত নয় কারণ এতে ডিমের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান নষ্ট হয়ে যায়।

আরো পড়ুন…

কিসমিস

দ্রুত ওজন বৃদ্ধি করতে প্রতিদিন সকালে কিসমিস ভিজিয়ে খেতে পারে। কিসমিস অনেক পুষ্টিকর এবং দ্রুত ওজন বৃদ্ধিতে সহায়ক। কিসমিস আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধির পাশাপাশি শরীর সুস্থ রাখবে এবং এর পুষ্টি উপাদান আপনার শরীরকে সুস্বাস্থ্যবান রাখতে সহায়তা করবে।

কাঁচা ছোলা

কাঁচা ছোলা খুবই পুষ্টি সমৃদ্ধ একটি খাবার। কাঁচা ছোলায় মাছ-মাংসের চেয়েও বেশি প্রোটিন এবং পুষ্টিসমৃদ্ধ উপাদান রয়েছে। এবং প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি রয়েছে। আপনার স্বাস্থ্য দ্রুত উন্নত করার জন্য নিয়মিত কাঁচা ছোলা খেতে একদমই ভুল করবেন না।

দুধ

আমরা জানি দুধে রয়েছে উচ্চমাত্রার ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও প্রোটিন সহ আরো অনেক পুষ্টিকর উপাদান যা আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত জরুরী। স্বাস্থ্যের দ্রুত উন্নতি ঘটাতে এবং মোটা হতে চাইলে অবশ্যই নিয়মিত দুধ পান করবেন।

আরো পড়ুন….

ফলমূল এবং সবুজ শাকসবজি

প্রাকৃতিক ফলমূল এবং সবুজ শাকসবজি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। দ্রুত মোটা হওয়ার জন্য অবশ্যই ফলমূল খাবেন। একজন সুস্থ মানুষের প্রতিদিন ২৫০ থেকে ৩০০ গ্রাম ফল খাওয়া প্রয়োজন।

তবে অবশ্যই চেষ্টা করবেন আপনার খাদ্য তালিকায় ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল বেশি পরিমাণে রাখার জন্য।


আর ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফলমূল আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আমরা কমবেশি প্রায় সকলেই জানি। এছাড়াও আপনার খাদ্য তালিকায় অবশ্যই সবুজ শাকসবজি রাখবেন। সবুজ শাক সবজিতে রয়েছে হাজারো রকমের পুষ্টি গুনাগুন যা আমাদের স্বাস্থ্যের পুষ্টি চাহিদা পূরণ করতে সাহায্য করবে।

আরো পড়ুন….

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি

স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটাতে চাইলে এবং দ্রুত শরীর মোটা করার জন্য পানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করলে দেহের কোষ গুলো বিকশিত হয় এবং নতুন নতুন কোষের জন্ম নেয়।

শরীরের দ্রুত উন্নতি ঘটাতে চাইলে এবং মোটা হতে চাইলে অবশ্যই প্রতিদিন ৮ থেকে 10 গ্লাস পানি পান করতে হবে।

আরো পড়ুন….

পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম

স্বাস্থ্য মোটা করতে হলে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানো প্রয়োজন। ঘুম আমাদের শরীরের ক্লান্তি দূর করতে এবং শক্তি জোগাতে সহায়তা করে। সুস্বাস্থ্যবান থাকতে হলে অবশ্যই ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন। স্বাস্থ্য দ্রুত মোটা করার জন্য অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে।

তবে অনেকে স্বাস্থ্য মোটা করতে গিয়ে অতিরিক্ত ঘুমায় অতিরিক্ত ঘুমালে শরীরের স্থুল হয় ঠিকই তবে অতিরিক্ত ঘুম স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

আরো পড়ুন….

ব্যায়াম

কী ব্যায়াম এর কথা শুনে ভয় পেয়ে গেছেন। বেশিরভাগ মানুষই অলস এজন্য বাঙালিরা কেউই ব্যায়াম বা শরীরচর্চা করতে রাজি নয়। তবে সুস্থ থাকার জন্য শরীর চর্চা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

অনেকেই আবার ভাবে যে ব্যায়াম করলে শরীর মোটা হবে কিভাবে উল্টো শরীর শুকিয়ে যাবে। এটা একদমই ভুল কথা ব্যায়াম করলে শরীর শুকিয়ে যায় না উল্টো বডি ফিট হয়। এছাড়াও শরীর সুস্থ ও রোগমুক্ত থাকে।


রোগা পাতলা এবং চিকন স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটাতে অবশ্যই ব্যায়াম করুন। কারণ শরীরচর্চা এবং খেলাধুলা আপনার স্বাস্থ্যের দ্রুত উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করবে। তবে ব্যায়াম না করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। তাই অবশ্যই সুস্বাস্থ্যবান থাকতে চাইলে নিয়মিত কমপক্ষে আধা ঘণ্টা ব্যায়াম করুন।

আরো পড়ুন….

কিছু বদঅভ্যাস ত্যাগ

অনেকেরই সিগারেট এবং ড্রিংস এর নেশা রয়েছে শরীর মোটা করতে এবং সুস্বাস্থ্যবান থাকতে চাইলে অবশ্যই সকল প্রকার নেশাদ্রব্য ত্যাগ করতে হবে। পাশাপাশি বাহিরের ফাস্টফুড জাতীয় খাদ্য একদমই পরিহার করতে হবে।

এছাড়াও অতিরিক্ত সময় ধরে স্মার্টফোন এবং ল্যাপটপ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন। আর অবশ্যই স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হবে। কারণ স্বাস্থ্য ভালো থাকলে খুবই সুন্দর অনুভূতি থাকে। যা স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে কখনোই বোঝা তো দূরের কথা কল্পনাও করা সম্ভব হয় না।


স্বাস্থ্য সংক্রান্ত এবং এই পোস্ট সংক্রান্ত যেকোন প্রশ্ন এবং মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন।


💙এতক্ষন আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।💙

5 Comments

  1. আমার বয়স ১৪,,,আমি চিকন কিন্তু আমার পেট বড়,,,এখন আমার করণীয় কি?

  2. আমার বয়স ২০ আমি অনেক চিকন খাওয়ার রুচি নেই জোর করে খাওয়ার চেষ্টা করলে বমি আসে মাথা ঘোরে,,,, আমি কি মোটা হতে পারবোনা কখনো 😓😓😓

  3. আমার বয়স ২০ আমি অনেক চিকন খাওয়ার রুচি নেই জোর করে খাওয়ার চেষ্টা করলে বমি আসে মাথা ঘোরে,,,, আমি কি মোটা হতে পারবোনা কখনো 😓😓😓

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *