খাদ্যফিটনেসসুস্বাস্থ্য

প্রোটিন জাতীয় খাবার এবং এর প্রয়োজনীয়তা

প্রোটিন আমাদের শরীরের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ উপাদান তা আমরা কমবেশি প্রায় সবাই জানি। কিন্তু বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষই অতিরিক্ত মেদ চর্বি বেড়ে যাওয়ার কারণে মাংস এবং পুষ্টিকর খাদ্য  গুলো পরিহার করতে শুরু করেছে।ফলে অনেকেই শরীরে প্রোটিনের অভাব দেখা দিতে শুরু করেছে।

প্রোটিন জাতীয় খাবার এবং এর প্রয়োজনীয়তা
প্রোটিন জাতীয় খাবার এবং এর প্রয়োজনীয়তা

তবে শুধু মাছ এবং মাংস তেই প্রোটিন রয়েছে এটা সম্পূর্ণ ভুল। মাছ মাংস ছাড়া খাবার উচ্চমাত্রায় প্রোটিন। আগেই বলেছি প্রোটিন আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  তাই প্রোটিন  সমৃদ্ধ খাবার  কোনভাবেই পরিহার করা যাবে না। কারণ আমাদের শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি দেখা  দিলে শরীরে নানা রকম সমস্যা এবং জটিল রোগ দেখা দেবে।

আরো পড়ুন….

তাই প্রতিদিন পরিমাণ মত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার অবশ্যই খেতে হবে।তাছাড়াও প্রোটিন এর ঘাটতি বিশেষ করে শিশু-কিশোরদের বেশি থাকে। তবে তাই বলে যে অন্য সবার প্রোটিনের চাহিদা নেই এরকমটা নয়। সব বয়সের মানুষেরই রয়েছে প্রোটিনের চাহিদা। আমাদের শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি থাকলে শরীরে নানা রকম সমস্যা কোন রোগ সৃষ্টি হতে শুরু করে।

প্রোটিনের ঘাটতির লক্ষণ

আমাদের দেহে প্রোটিনের ঘাটতি হলে  নানা রকম লক্ষণ  দেখা যায়। প্রোটিনের ঘাটতি হলে অনেকেরই প্রচুর পরিমাণ চুল ঝরে পড়ার সমস্যা লক্ষ্য করা যায়। এছাড়াও  গাল মুখ এবং লালাগ্রন্থি ফুলে যায়। তাছাড়াও মানবদেহে প্রোটিন ঘাটতি হলে অকারনে শরীর খুব ক্লান্ত লাগে।

অল্প পরিশ্রমেই  ক্লান্ত হয়ে পড়ে এবং  হাপিয়ে যায়। প্রোটিনের ঘাটতি দেখা দিলে শরীরে পানি জমে যাওয়া এবং শরীরের বিভিন্ন অংশ থেকে উঠার সম্ভাবনা থাকে।

আমাদের শরীরে প্রোটিনের  অভাব থাকলে  ত্বক খসখসে এবং অনেকটাই রুক্ষ হয়ে যায়। এছাড়াও ত্বকে আরো নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। প্রোটিনের অভাব দেখা দিলে  নখের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায় এবং আমাদের হাড়ের বিভিন্ন প্রকার সমস্যা সৃষ্টি হয়। হাড়ের জোড়ায় ব্যথা সৃষ্টি হয় এবং হাড় ক্ষয় হতে থাকে। এছাড়াও হাড় দুর্বল হয়ে পড়া সহ নানা রকম সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। 

প্রোটিনের চাহিদা পূরণের খাবার

প্রোটিনের চাহিদা পূরণের জন্য অবশ্যই  প্রতিদিনের খাবারে পরিমাণ মতো প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার অবশ্যই রাখতে হবে। তবে প্রোটিনের চাহিদা আপনার শরীরে দেখা দিলে আপনি ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে পারেন। আর অবশ্যই জেনে নেওয়া ভালো যে আপনার দেহের প্রোটিনের চাহিদা পূরণের জন্য প্রতিদিন কতটা পরিমাণে প্রোটিন জাতীয় খাবার খাওয়া প্রয়োজন।

ডিম

ডিম প্রোটিন এর অন্যতম একটি উৎস। প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ করার জন্য আপনি প্রতিদিন ডিম খেতে পারেন। ডিমে রয়েছে উচ্চমাত্রায় প্রোটিন। প্রতিদিন ডিম খাওয়ার ফলে সহজেই আপনি আপনার শরীরের  প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ করতে  পারবেন।

এছাড়াও ডিমে রয়েছে আরো নানা রকম পুষ্টিসমৃদ্ধ উপাদান। ডিমে রয়েছে কোলেস্টেরল এবং ক্যালরি সহ শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় অনেক পুষ্টিগুণ। তাই প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ করার জন্য সহজলভ্য একটি ডিম খেতে একদমই অলসতা করবেন না।

আরো পড়ুন…

বাদাম

বাদাম প্রোটিন এর আরেকটি উৎস। বাদাম দেহের কোষ বৃদ্ধি করতে এবং পেশী সুগঠিত করতে সহায়তা করে। বাদামে প্রোটিন সহ আরো নানা রকম শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান রয়েছে। বাদামে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং ক্যালরি সহ আরো নানা রকম পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে।

তাছাড়াও বাদাম খেলে শরীরে ফ্যাট জমে না এবং সহজেই মাংসপেশীর সুগঠিত হয়। বাদাম আমাদের শরীরের প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি অনেক উপকারী  পুষ্টি গুণাগুণ সম্পন্ন। 

ছোলা বুট

ছোলা বুট খুবই পুষ্টিসমৃদ্ধ এবং প্রোটিন জাতীয় উপাদানে ভরপুর।  ছোলা বুট এ রয়েছে ফাইবার এবং ক্যালসিয়াম সহ  অনেক রকম পুষ্টি জাতীয় উপাদান। তবে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করতে ছোলা বুট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও ছোলা বুট আমাদের প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি শরীরের অন্যান্য অনেক পুষ্টি চাহিদা  সহজেই  পূরণ করে থাকে।

গরুর মাংস

গরুর মাংস এর প্রোটিন চাহিদা পূরণ করার ক্ষেত্রে খুবই কার্যকরী। গরুর মাংসে রয়েছে উচ্চমাত্রার প্রোটিন সহ আরো অনেক পুষ্টিকর উপাদান যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। ভিটামিন, জিংক এবং আয়রন সহ আরো অনেক উপাদান রয়েছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়।

তবে অনেকেই বিভিন্ন সমস্যার কারণে গরুর মাংস খেতে পারে না। তবে অল্প মাত্রায় খেলে তেমন ক্ষতি  হবার আশঙ্কা নেই। কিন্তু খুব বেশী সমস্যা হলে খাবার দরকার নেই কারণ গরুর মাংস ছাড়া আরো অনেক প্রোটিন জাতীয় খাবার রয়েছে।

ডাল

ডাল একটি প্রোটিন জাতীয় খাদ্য উপাদান। 1 কাপ ঘন  ডালে 18 গ্রাম প্রোটিন এর উপস্থিতি থাকে। এছাড়াও  ডালে আরো পুষ্টি উপাদান থাকার কারণে ডাল একটি সুষম খাবার। তবে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করার ক্ষেত্রে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় ডাল রাখা উচিত।

আরো পড়ুন….


এই খাবার গুলো খাওয়ার পাশাপাশি পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম এবং বিশ্রাম নিলে খুব দ্রুতই প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ যাবে। পাশাপাশি প্রতিদিন কিছুটা সময় হলে অবশ্যই শরীরচর্চা করা প্রয়োজন। কারণ প্রতিদিন বিশুদ্ধ সময় শরীর চর্চা করলে স্বাস্থ্য ভালো এবং সুস্থ থাকবে।

আর স্বাস্থ্য ভালো এবং সুস্থ থাকা কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা সবাই  জানি। এছাড়াও উচিত  পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করা এবং স্বাস্থ্যের প্রতি অবশ্যই সচেতন থাকা দরকার।  কারণ স্বাস্থ্য সুস্থ না থাকলে  শরীরে নানা রকম সংক্রমণ  দেখা দিতে পারে। এতে শরীরে বেশি পরিমাণে খাদ্য ঘাটতির সম্ভাবনা থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *