বিউটিযোগ ব্যায়াম

ফর্সা, উজ্জ্বল এবং লাবণ্যময় ত্বক পেতে যোগ ব্যায়াম

ফর্সা, উজ্জ্বল এবং লাবণ্যময় ত্বক পেতে যোগ ব্যায়াম: বর্তমানে সৌন্দর্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। যোগব্যায়াম করার ফলে শরীরের হাজারো উপকারের পাশাপাশি ত্বকের জন্য খুবই ভালো। প্রাকৃতিক ভাবে উজ্জ্বল এবং লাবণ্যময় ত্বক পাওয়ার জন্য যোগ ব্যায়াম এর কোন বিকল্প নেই।

ফর্সা, উজ্জ্বল এবং লাবণ্যময় ত্বক পেতে যোগ ব্যায়াম
 ফর্সা, উজ্জ্বল এবং লাবণ্যময় ত্বক পেতে যোগ ব্যায়াম

একজন মানুষকে বাহির থেকে তখনই সুন্দর দেখায় যখন সে ভেতর থেকে সুন্দর থাকে। যোগ ব্যায়ামের আসন অনুশীলনের করার ফলে মানুষ ভেতর থেকে সুন্দর হয়ে ওঠে। যোগ ব্যায়াম শরীরের ভেতর থেকে ত্বকের উন্নতির জন্য কাজ করে।

যোগব্যায়ামের বিভিন্ন আসন অনুশীলন করার ফলে শরীরের রক্ত চলাচল এর উন্নতি হয় এবং ত্বকের কোষ গুলো ভালো থাকে। যোগাসন অনুশীলন করার ফলে শরীরের সুস্থতা ফিরে আসে এবং শরীরের অনেক উন্নতি হয়।

যোগাসন ত্বকের ময়লা আবর্জনা এবং বিভিন্ন জীবাণু বাইরে বের করে ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পেতে সাহায্য করে। এছাড়াও যোগাসন অনুশীলন করার ফলে দুশ্চিন্তা এবং মানসিক চাপ মুক্ত থাকা যায় ফলে চেহারায় সৌন্দর্য অনেকটাই চলে আসে।

যোগব্যায়াম সুস্থ রাখার পাশাপাশি চেহারায় তারুণ্য বজায় রাখে। ফলে বার্ধক্যের ছাপ সহজে পড়ে না এবং চেহারা সৌন্দর্য বজায় থাকে। চেহারার সৌন্দর্য বাড়াতে বেশ কয়েকটি যোগাসন নিয়মিত অনুশীলন করতে পারেন।

পদ্মাসন

পদ্মাসন ত্বকের জন্য খুবই ভাল একটি যোগ ব্যায়াম। পদ্মাসন করার জন্য প্রথমে বসতে হবে এরপর বাম উরুর উপরে ডান পা উঠাতে হবে এবং ডান উরুর উপরে বাম পা উঠিয়ে বসতে হবে।

এবং একটি হাত উপর অপর হাত রেখে মেরুদন্ড  সোজা থাকা অবস্থায় 30 সেকেন্ড থাকতে হবে। ত্বক উজ্জ্বল, লাবণ্যময় এবং ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য পদ্মাসন নিয়মিত অবশ্যই অনুসরণ করবেন।

সুখাসন

সুখাসন করার জন্য মেরুদন্ড সোজা রেখে বাবু হয়ে বসতে হবে। এরপর ডান পায়ের পাতা বাম পায়ের উপরে রেখে দুটো হাতের তালু একত্র করে মিলিয়ে বুক বরাবর রেখে ঘাড় সোজা রেখে বসে থাকতে হবে।

প্রণয়ন

এই আসনটি ত্বক লাবণ্যময় এবং সুন্দর করার জন্য খুবই ভালো। এই আসনটিকে গভীর এবং লম্বা নিশ্বাস নেওয়ার ফলে শরীরে বাড়তি অক্সিজেন পৌঁছায়।

ফলে শরীরের অনেক উপকার পাওয়ার পাশাপাশি ত্বকের কোষগুলো ভালো থাকে এবং ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে সাহায্য করে। এই আসনটি করার জন্য কিছুটা পদ্মাসন এর করার মতো করে বসতে হবে।

পদ্মাসন অনুশীলন করার ক্ষেত্রে পায়ের গোড়ালির উপরে হাত রাখতে হয়। কিন্তু প্রণয়ন করার জন্য দুটো হাত হাটুর উপরে রেখে বুড়ো আঙুল কে শাহাদাত আঙ্গুল দিয়ে টিপে ধরে হাতের তালু উপরের দিকে রেখে মেরুদন্ড এবং ঘাড় সোজা রেখে বসতে হবে এবং গভীর নিঃশ্বাস নিতে। প্রাণয়ন এবং স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী।

সূর্য নমস্কার

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির জন্য সূর্য নমস্কার একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যায়াম। ত্বকের উজ্জ্বলতা এবং সৌন্দর্য বৃদ্ধির পাশাপাশি সূর্য নমস্কার আসনটি অনুশীলন করলে কিভাবে পেটের মেদ চর্বি কমে যায় এবং শরীরের আবর্জনা বের হয়।

শীর্ষাসন

শীর্ষাসন মুখের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য কার্যকরী একটি ব্যায়াম। শীর্ষাসন করার জন্য মাথা নিচে দিয়ে পা উপরের দিকে দিয়ে দাঁড়াতে হবে।

শীর্ষাসন হলো মাথা দিয়ে দাঁড়ানো যদিও প্রথম অবস্থায় মাথা দিয়ে দাঁড়িয়ে শীর্ষাসন অনুশীলন করা একটু কঠিন তবে নিয়মিত অনুশীলন করার ফলে এটি অনেকটা সহজ হয়ে ওঠে। তবে শীর্ষাসন চেহারা সুন্দর হওয়ার জন্য খুবই উপকারী।

চেহারার উপকারের পাশাপাশি শীর্ষাসন অনুশীলন করার ফলে অনিদ্রা, স্মৃতি শক্তি হীনতা, লো ব্লাড প্রেসার সহ নানা রকম রোগের উপকার করে থাকে।

সার্ভাঙ্গ

এই আসনটি ঘরের জন্য অত্যন্ত উপকারী এবং রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। এবং ত্বকের জন্য অত্যন্ত ভালো একটি আসন।

এই আসনটি করার জন্য প্রথমে চিৎ হয়ে শুয়ে পড়তে হবে। এরপর ঘাড়ের উপরে দাঁড়াতে হবে পিঠে দুই হাত রেখে পায় এবং কোমর একদম সোজা উপরের দিকে রেখে 30 সেকেন্ড থাকতে হবে।

এই আসুন টির উপকারিতা সংক্ষেপে বর্ণনা করে বলা সম্ভব নয়। এজন্য অবশ্যই নিয়মিত এই আসনটি করার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

হলাসন

হলাসন করার জন্য প্রথমে চিৎ হয়ে শুয়ে তার উপর পা দুটোকে ধীরে ধীরে উপরের দিকে উঠতে হবে। মাথার উপরে মেঝেতে লাগাতে হবে এবং হাত দুটো সামনের দিকে নিয়ে যেতে থাকা অবস্থায় এই আসনটি করতে হবে।

এই আসনটি করার ফলে সহজেই হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এবং ত্বক উজ্জল করতে সাহায্য করে। আসনটি শুরুতে করতে কঠিন মনে হলেও ধীরে ধীরে ঠিক হয়ে যাবে।

শবাসন

এই আসনটি পৃথিবীর সবচেয়ে সহজ যোগাসন। শবাসন করার জন্য প্রথমে একদম সোজা হয়ে শুয়ে পড়তে হবে এবং দুটো পা দুটো হাত দুদিকে ছড়িয়ে রাখতে হবে।

পা এক থেকে দেড় ফুট ফাঁকা রাখতে হবে এবং হাতদুটো শরীরের দুপাশে রেখে ঘাড় সোজা রেখে 30 সেকেন্ড শুয়ে থাকতে হবে। প্রত্যেকটি যোগাসন শেষে শবাসন করা খুবই জরুরী। শবাসন ত্বকের জন্য যেরকম ভালো তেমনি অনুশীলন করার জন্য আসনটি করা খুবই আরামদায়ক এবং পরিশ্রমহীন।

লাবণ্যময়, উজ্জ্বল এবং মসৃণ ত্বকের জন্য এই আসন গুলো নিয়মিত অনুশীলন করার পাশাপাশি সুষম এবং পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।

তবে অবশ্যই ধৈর্যধারণ করবেন কারণ অল্প কয়েকদিন করি আপনি ফলাফল লক্ষ করতে পারবেন না। অবশ্যই নিয়মিত অনুশীলন করতে থাকুন।

এক সময় আপনি নিজেই লক্ষ্য করতে পারবেন যে পূর্বের তুলনায় আপনার ত্বক কতটা উজ্জ্বল, মসৃণ, লাবণ্যময় এবং সৌন্দর্যময় হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.