টিপস

মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করার উপায়। মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপস, ইমু।

প্রিয় ভিজিটরস আপনারা কি কোনো ব্যক্তির পরিচয় সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন ? আপনাদের কাছে থাকা মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা নিয়ম জানতে চাচ্ছেন ?

অনেক প্রয়োজনীয় কাজে, আমাদের অনেক সময় বিভিন্ন জায়গায় যেতে হয়। অনেক মানুষের সাথে ভাব বিনিময় করতে হয়। আবার অনেক ক্ষেত্রে সময়ে সময়ে অনেক মানুষের সাথে কাজের বিভিন্ন খবরা খবর নিতে হয়। সেজন্য অনেক সময় মানুষের সাথে পরিচয়ের পর আমরা আমাদের মোবাইল নম্বরটি সংগ্রহ করে রাখি। তখন মোবাইল নম্বরটি হয়ে উঠে বার্তা আদানপ্রদানের ,বার্তা বিনিময়ের প্রধান ও একমাত্র মাধ্যম বা উপায়। কিন্তু অনেক কাজের ক্ষেত্রে অনেক সময় বিভিন্ন মানুষের সাথে পরিচয় হয় তবে সকলের সাথে পরিচয় হ‌ওয়ার পর সকলের পরিচয় কি মনে রাখা রাখতে পারি আমরা?

অনেক সময় আমাদের পরিচিত মানুষদেরকে ছাপিয়ে অপরিচিত নাম্বার থেকে বার বার কল আসলে আমরা বেশ অস্বস্তিতে পরে যাই। অচেনা নাম্বার থেকে কল আসলে আমরা অনেক সময় বেশ ঘাবড়ে যাই অথবা বিচলিত হয়ে পড়ি। কিছু কিছু সময় বিভিন্ন হুমকি দেওয়া সহ নানা রকম অপরাধমূলক কর্মকান্ডে শামীল হয়ে থাকেন। সেজন্য শুধুমাত্র মোবাইল ফোনটিই হতে পারে আপনাদের কারো পরিচয় জেনে রাখার সর্বোত্তম মাধ্যমে। তাই আজকে মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে।

আপনারা চাইলে কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে খুব সহজেই যে কোন স্থানের মানুষের পরিচয় জেনে নিতে পারবেন । তবে অনেকেই সেরকম ভাবে জানেন না যে, কিভাবে শুধুমাত্র মোবাইল ফোন দিয়েই কোন ব্যক্তির পরিচয় জেনে নিতে পারবেন। তবে কোন ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার থেকে পরিচয় বের করতে হলে, আপনাদের কে কাঙ্খিত মোবাইল নাম্বার থেকে পরিচয় বের করতে হলে, আপনারা তিনটি মাধ্যমে আপনাদের সে কাজটি করতে পারবেন সেগুলো হলো:

  • কোনো মোবাইল এপ্লিকেশন এর মাধ্যমে।
  • বিভিন্ন ধরনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ফলে।
  • আইনশৃঙ্খল বাহিনীর সহায়তা নিয়ে।

মোবাইল এপ্লিকেশনের মাধ্যমে পরিচয় বের করার উপায়

মোবাইল নম্বর নিয়ে যদি আপনারা কারো পরিচয় বের করতে চান, তাহলে যে মোবাইল এপ্লিকেশনটি সবচেয়ে বেশি কার্যকরী ভূমিকা পালন করে তার নাম হলো true caller। এর কারণ হচ্ছে এই এপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের ফোনে ইনকামিং, আউটগোয়িং সকল কলের ব্যক্তির নাম দেখতে পারবেন। এছাড়াও এই এপ্লিকেশনের আরো কিছু সুবিধা রয়েছে।এই এপ্লিকেশন ব্যবহার করতে সকলকে বেশ উৎসাহিত করবে। আপনারা এই এপ্লিকেশনটি গুগল প্লে স্টোর থেকে সহজে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

True caller এপ্লিকেশন টি বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য একটি জনপ্রিয় এপ্লিকেশন হয়ে গেছে। এই এপ্লিকেশনের মাধ্যমে মূলত আপনার আপনাদের মোবাইল ফোনের দৈনন্দিন জীবনে ইনকামিং,আউটগোয়িং, সকল ধরণের কলের একটি ডাটা জমা থাকে। সেই সমস্ত ডাটা সমূহ থেকে ক্লাউড সোর্সিং এর ব্যবহার করে এই এপ্লিকেশনটি সেই ডাটা কালেক্ট করে সকলের কাছে তাদের কাঙ্খিত তথ্য সমূহ সরবরাহ করে থাকে। যেগুলো আমরা যখন কোনো কিছু সার্চ করি তখন সেই তথ্যসমূহ আমাদের সামনে চলে আসে এবং আমরা তা ব্যবহার করে থাকি।

True Caller একটি জনপ্রিয় মোবাইল এপ্লিকেশন সাইট হল । এই এপ্লিকেশনটি ব্যবহার করার জন্য আপনাদেরকে সবার আগে এই এপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। ডাউনলোড করে নিয়ে আপনাদের প্রথমে এপ্লিকেশনটি আপনাদের প্রয়োজনীয় ইমেইল, মোবাইল নাম্বার নাম দিয়ে সেট করে নিতে হবে। আপনাদের এপ্লিকেশনে সকল তথ্য পেতে আপনাদের কিছু কিছু স্টোরেজ কিংবা অন্যান্য জিনিসের পার্মিশনের প্রয়োজন হবে। আপনাদেরকে সে পারমিশন সমূহ এনাবেল করে দিতে হবে। এনাবেল করে দেওয়ার মাধ্যমে ফুল সেটিং প্রসেস এখানেই সম্পন্ন হবে।

আপনারা যদি কোন ব্যক্তির নাম্বার থেকে পরিচয় বের করতে চান সেই ক্ষেত্রে True Caller এপ্লিকেশনটি হতে পারে আপনাদের কাংঙ্খিত সমাধান। প্রথমে আপনাদেরকে এপ্লিকেশনটি ওপেন করে, এপ্লিকেশন টি সেট করে নিতে হবে। এপ্লিকেশন সেট করার পর সার্চ বাড়ে গিয়ে আপনাদেরকে যে ব্যক্তির পরিচয় জানতে চান তার নাম্বারটি লিখে দিতে হবে। বাস হয়ে গেল। আপনি খুব সহজে সেই ব্যক্তির পরিচয় জেনে নিতে পারবেন।

Truecaller এপ্লিকেশন এর সুবিধা:

  • আপনারা খুব সহজে স্প্যাম নম্বর গুলো ব্লক করতে পারবেন।
  • কোন ব্যক্তির কল দিলে সাথে সাথে তার নাম দেখতে পাবেন ফোনে সেইভ করা না থাকলেও ।
  • এছাড়াও এখানে রয়েছে ফ্রি কল ও ম্যাসেজের সুবিধা। আরো জানতে হলে সম্পুর্ণ আর্টিকেল টি।

বিভিন্ন ধরনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে

আপনারা চাইলে খুব সহজে বিভিন্ন ধরণের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে কোন মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করতে পারবেন। আপনারা সেই সকল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সমূহ ব্যবহার করে এই কাজটি করতে পারবেন তা নিচে উল্লেখ করা হলো :

  • ইমু।
  • হোয়াটস্যাপ।
  • ভাইবার মেসেঞ্জার।
  • ইমু

ইমু: বর্তমানে জনপ্রিয় একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হল ইমু। এর সহজলভ্যতা এবং ব্যবহার উপযোগী তার কারণে সকল ব্যবহারকারীরা এই এপ্লিকেশন টি ব্যবহার করে আসছে। আপনারা যদি মোবাইল নাম্বার থেকে পরিচয় বের করতে চান সেইক্ষেত্রে আপনাদের সেই নাম্বারটি কোন নাম ছাড়া আপনাদের মোবাইলে সেইভ করে নিবেন। বাস সেই ব্যক্তি যদি ইমু ব্যবহারকারী হয়ে থাকে সেই ব্যক্তির নাম, সেই ব্যক্তির প্রোফাইল আপনারা আপনাদের সামনে দেখতে পারবেন।

ডাউনলোড করার জন্য  আপনাদেরকে নিচের লিংকে ক্লিক করতে হবে। store/apps/android.imoim.

হোয়াটস্যাপ: হোয়াটস্যাপে আপনারা কোন ব্যক্তির পরিচয় জানতে হলে আপনাদের নিজের একটি হোয়াটস্যাপ একাউন্ট থাকতে হবে। আপনারা যে ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার থেকে তার পরিচয় বের করতে চান সেই ব্যক্তির নাম্বার প্রথমে আপনাদের মোবাইল নাম্বারটা সেভ করলে তার নাম ও ছবিসহ প্রোফাইল আপনারা দেখতে পারবেন।

হোয়াটস্যাপ ডাউনলোড লিংকঃ https://play.google.com

ভাইবার মেসেঞ্জার: ভাইবার এর ক্ষেত্রেও আপনাদেরকে একই কাজ করতে হবে। আপনারা প্রথমে যে ব্যক্তির পরিচয় বের করতে চান সেই ব্যক্তির নাম ছাড়া নাম্বার ভাইবারে সার্চ করে দিলে উক্ত ব্যক্তির নাম ও ছবি পেয়ে যেতে পারবেন।

ভাইবার ডাউনলোড লিংকঃ apps/details?id=com.viber.voip

পুলিশ

উপরের যে কোন উপায়ে আপনারা সফল না হয়ে থাকেন তাহলে আপনারা সর্বশেষ স্বরণাপন্ন হতে পারেন পুলিশের কাছে। কোন নাম্বারের পরিচয় আপনারা জানতে চান এবং কেন জানতে চান? কি কাজের জন্য জানতে চান এইসকল তথ্যাদি শেয়ার করতে হবে পুলিশের কাছে। পুলিশ আপনাদের দেওয়া তথ্যাগুলোর সত্যতা যাচাই করে দেখবে। সত্যতা যাচাই হলে আপনারা খুব সহজে তাদের কাছ থেকেআশা করি কাঙ্খিত সমাধান পেয়ে যাবেন.

এছাড়াও যখন উপরোক্ত কোন উপায়ে কাজ হচ্ছে না তখন আপনার ফোন নম্বর দিয়ে পরিচয় জানা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়ে, সর্বশেষ মাধ্যম হল পুলিশ। হতে পারে অপরিচিত কোন ব্যক্তির নাম্বার থেকে আপনাকে হুমকি বা বিরক্ত করে যাচ্ছে। তখন আপনি পুলিশের নিকট যাওয়াটাই অতি বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

ফোনে কেউ হুমকি দিলে কি করতে হবে?

পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে থানায় জিডি করতে হবে। আর এই জিডি বাংলাদেশ সরকার সম্পূর্ণ ফ্রি করে দিয়েছে। আপনি আপনার নিকটস্থ যে কোন থানায় গিয়ে ওসি-এসআই/ইএসআই এর মাধ্যমে জিডি করতে পারবেন।

অপরাধীকে ধরতে কতদিন সময় লাগবে?

1 ঘন্টা থেকে সর্বোচ্চ 72 ঘন্টা/ 3 দিন।

পুলিশের কাছে থাকা অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ট্রাকিং ডিভাইসের মাধ্যমে খুব সহজেই নাম্বার এর পরিচয় এবং লোকেশন খুঁজে বের করে ফেলতে সক্ষম হবে।
উপসংহারঃ বর্তমান জীবনে মোবাইল হয়ে উঠেছে আমাদের নিত্যসঙ্গী। মোবাইলের মাধ্যমে আমরা আমাদের আশেপাশের সকলের সাথে যোগাযোগ করতে পারছি।কিন্তু বহু উপকারীতার পাশাপাশি মোবাইল ফোনের বেশ কিছু অপকারীতাও রয়েছে।বিভিন্ন নাম্বার থেকে অহেতুক কল এসে বিরক্ত করা,হুমকি দেওয়া ইত্যাদি সমস্যা এড়াতে চাইলে সেই ব্যক্তির পরিচয় জানা খুব বেশি দরকার।আশা করি আজকের আলোচনার মাধ্যমে আপনারা মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.