টিপস

ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট এবং ডিএক্টিভ করার মধ্যে পার্থক্য জেনে নিন

ফেসবুক ডিলিট এবং ডিএক্টিভ: সম্মানিত ভিজিটরস বন্ধুরা আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে শুরু করছি আমাদের আজকের নতুন টিপস ফেসবুক ডিএকটিভ ও ফেসবুক ডিলিট করার মধ্যে পার্থক্য। ফেসবুক ডিএক্টিভ ও ডিলেট এই দুইটি বিষয় শুনতে কারো কারো কাছে একই রকম মনে হতে পারে। অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী বন্ধুরা এই দুইটি বিষয়কে একই বলে মনে করে থাকেন। তবে বন্ধুরা এখানে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ ও ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট করার মধ্যে অনেক বড় পার্থক্য রয়েছে।

ফেসবুক ডিলিট এবং ডিএক্টিভ

বন্ধুরা আমাদের আজকের এই পোস্টে আমরা জানাবো ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করলে কি হয় ও ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট করলে কি হয়। উভয় ফিচার এর সম্পর্কে বিস্তারিত জানার মাধ্যমে আমরা বুঝার চেষ্টা করবো মে উক্ত বিষয় দুইটির মধ্যে কতটুকু মিল অমিল রয়েছে। তাহলে বন্ধুরা চলুন জেনে নেওয়া যাক ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভেট ও ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট করার মধ্যে পার্থক্য সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করলে কি হয়

ভিজিটর বন্ধুরা আমরা প্রথমে আপনাদের জানতে চাই ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করলে আসলে কি হয়, এর মাধ্যমে ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ এর মূল কাজ কি । তাহলে ফেসবুক একাউন্টে ডিএক্টিভ সম্পর্কে আপনাদের পরিস্কার ধারণা হয়ে যাবে।

ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভেট করা একটি টেম্পরারি (অস্থায়ী) ব্যাপার। অর্থাৎ ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করলে তা পুনরায় একটিভ করা যায় একাউন্টে লগিন করার মাধ্যমে । অর্থাৎ এখানে আপনাদের একাউন্ট ঠিকই অক্ষত থাকছে।

একাউন্ট ডিএকটিভ থাকা অবস্থায় কেউ আপনাদের ফেসবুক একাউন্ট দেখতে পাবেনা। এর মানে হলো আপনাদের ফেসবুক একাউন্টের পাশাপাশি আপনাদের প্রোফাইলে করা পোস্ট বা গ্রুপে করা পোস্ট ফেসবুকে প্রদর্শিত হবেনা। আবার কেউ যদি আপনাদের একাউন্ট সার্চ করে, তবেও তা খুঁজে পাওয়া যাবেনা।

তবে বন্ধুরা ফেসবুক প্রোফাইল খুঁজে না পেলেও আপনাদের পাঠানো মেসেজ ঠিকই ফেসবুকে থাকবে। অর্থাৎ ফেসবুক একাউন্টের মাধ্যমে ব্যক্তিগত বা গ্রুপ চ্যাটে পাঠানো সকল মেসেজ একাউন্ট ডিএকটিভ করার পরও প্রদর্শিত হয়। এছাড়া অকুলাস প্রোডাক্ট অ্যাকসেস করা বা অকুলাস ইনফরমেশন দেখা যাবেনা ফেসবুক একাউন্ট ছাড়া।

আপনাদের একাউন্ট ডিএকটিভ করলে আপনাদের দ্বারা চালিত ফেসবুক পেজগুলোও ডিএকটিভ হয়ে যাবে। অর্থাৎ একাউন্ট ডিএকটিভ করলে আপনাদের পেজগুলোও আর অন্য কেউ দেখতে পাবেনা। একাউন্ট ডিএকটিভেট করার পরেও যদি আপনাদের পেজ চালু রাখতে চান তবে পেজের কন্ট্রোল অন্য ফেসবুক ইউজারকে দিতে পারেন পেজ রোলস ফিচার এর মাধ্যমে। তবে বন্ধুরা পেজে একাধিক এডমিন থাকা অবস্থায় একাউন্ট ডিএকটিভ করলে পেজ একটিভ থাকবে।

ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট করলে কি হবে

সম্মানিত বন্ধুরা আপনারা এতোক্ষণ জানলেন ফেসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করলে কি হয় তা তো জানলেন। এবার তাহলে চলুন জানা যাক ফেসবুক একাউন্ট ডিলেট করলে কি হবে।

বন্ধুরা ফেসবুক একাউন্ট একবার ডিলিট করে দিলে তা আর ফিরে পাওয়া যায়না। তবে ফেসবুক একাউন্টটি ডিলিট করার কিছুদিন পর তা আসলে ডিলেট হয় কিন্তু সাথে সাথে না। ফেসবুক একাউন্ট ডিলিট করার প্রক্রিয়া অনুসরণের কিছুদিন পর একাউন্ট ডিলিট হয়। অর্থাৎ একাউন্ট ডিলিট করার পরেও কিছুদিন সময় দেওয়া হয় একাউন্ট ডিলিট এর বিষয়টি আপনাদের বিবেচনা করার জন্য। এর মধ্যে যদি আপনারা একাউন্ট পুনরায় লগিন করতে না চান তাহলে আর একটিভ হবে না চিরদিনের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে আর ফিরে পাওয়া যাবে না।

তবে বন্ধুরা মেসেজিং হিস্টোরি এর মত অনেক ফিচার ফেসবুক একাউন্টে স্টোর থাকেনা, যার ফলে একাউন্ট ডিলেট করার পরেও এগুলো থেকে যেতে পারে আপনাদের য়বন্ধুদের ইনবক্সে। অর্থাৎ একাউন্ট ডিলিট করার পরেও কিছু মেসেজ ইনবক্সে থেকে যেতে পারে।

পাঠক বন্ধুরা আপনারা যদি ফেসবুক একাউন্ট অকুলাস এর সাথে কানেক্ট করে থাকেন, তবে অকুলাস এর তথ্যও মুছে যাবে। এছাড়াও আপনাদের পারচেজ ও এচিভমেন্ট ও মুছে যাবে। অর্থাৎ অকুলাস এর মাধ্যমে কেনা অ্যাপ ও স্টোর ক্রেডিট আর থাকবেনা।

শুধুমাত্র আপনাদের দ্বারা ম্যানেজ করার পেজসমূহ ডিলিট হয়ে যাবে। বন্ধুরা আপনাদের পেজ যদি ডিলিট হওয়া থেকে রক্ষা করতে চান, তবে অন্য ফেসবুক ইউজারকে পেজের এডমিন হিসেবে এড করতে পারেন। এছাড়া ফেসবুক এর মাধ্যমে যেসব একাউন্টে লগিন করতে হয়, সেসব একাউন্টেও আপনারা অ্যাকসেস হারাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.