টিপস

(ইউটিউব চ্যানেল এর জন্য ৪ টি গুরুত্বপূর্ণ নিশ (Niche) দেখুন – ২০২২)

ইউটিউব এর গুরুত্বপূর্ণ নিশ!! বর্তমানে যে সকল সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে তার থেকে অন্যতম একটি সোশ্যাল মিডিয়া হলো এই ইউটিউব৷ বর্তমান সময়ের যে কোন মানুষকে যদি পাঁচটি সোশ্যাল মিডিয়া বলার জন্য অনুরোধ করা হয় তাহলে তারা youtube কে প্রথম বা দ্বিতীয় স্থানে রেখে তারপর বাকি চারটি সোশ্যাল মিডিয়ার নাম বলবে।

বর্তমানে যে সকল সোশ্যাল মিডিয়া আমরা ব্যবহার করি সেসব সোশ্যাল মিডিয়ায় লক্ষ্য করলে আমরা ইউটিউব কে দিনে একবার হলেও স্মরণ করি অর্থাৎ আমরা ইউটিউবে একবার হলেও প্রবেশ করি এবং ইউটিউবে নানারকম ভিডিও কনটেন্ট দেখি এবং অনেক আছে যারা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ইউটিউব কে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

ইউটিউব জনপ্রিয় হওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে তার মধ্যে আমরা যদি একটি কারণ ধরি সেটি হল ইউটিউবে চ্যানেল খুলে উপার্জন করার বিষয়টি।

অনেকে আছি যারা শুধু ইউটিউবকে বিনোদন এবং নানারকম তথ্য জানার জন্য ব্যবহার করি। কিন্তু বর্তমান সময়ে আপনারা হয়তো নিজেও জেনে থাকবেন ইউটিউবের মাধ্যমে আপনারা চাইলে চ্যানেল খুলে উপার্জন করতে পারেন।

আরো পড়ুন: গুগল স্ট্রিট ভিউ ব্যবহার করার নিয়ম

                    ভাইবার কি? ভাইবার একাউন্ট খোলার নিয়ম

ইউটিউব এর গুরুত্বপূর্ণ নিশ

আজকের আর্টিকেলটিতে মূলত আমরা আলোচনা করব ইউটিউবে উপার্জন করার বিষয়টি না অর্থাৎ আমরা একটি ইউটিউব চ্যানেলের নিশ সিলেক্ট নিয়ে আলোচনা করব। বর্তমান সময়ে এই বিষয়টি খুবই জনপ্রিয় একটি বিষয়। আমরা সবাই চাই আমাদের একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকুক কিন্তু আমরা ইউটিউব চ্যানেল কোন বিষয়ের উপর ভিডিও কনটেন্ট বানাবো সে বিষয়টি নিয়ে আমরা অনেকেই চিন্তিত থাকি। সেজন্য কাজ অনেক দূর পিছিয়ে যায় এবং এমনও অনেক লোক আছে যারা কাজ করতে আর পারেনা।

তা আজকে আমরা সবগুলো সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করব এবং আমরা আজকের আর্টিকেলটিতে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নিশ সিলেক্ট করব যেগুলোতে আপনারা খুব সহজে কাজ করে উপার্জন করতে পারবেন এবং আপনার ইউটিউব চ্যানেলটিকে বড় করতে পারবেন।

ইতিমধ্যে আপনারা হয়তো youtube এ নানা রকম বিষয়ের উপর কন্টেন্ট দেখেছেন। তো অনেক ইউটিউবার তাদের মেধা অনুযায়ী নানারকম কন্টেন্ট আপলোড করে।

তো আজকে আমরা আপনার মেধা এবং আপনার চাওয়া পাওয়ার উপর কয়েকটি নিশ নিয়ে আলোচনা করব যে লিশ গুলো নিয়ে কাজ করলে আপনারা খুব সহজেই সফলতা অর্জন করতে পারবেন। আর খুব সহজেই আপনার ইউটিউব চ্যানেলটিকে একটি জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল হিসেবে গড়ে তুলতে পারবেন তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করা যাক।

নিশ কি?

প্রথমে আমরা আলোচনা করব নিশ কি? এই বিষয় টি নিয়ে। অনেকের মনে হয়তো এই শব্দটি প্রথম শুনছেন।

আমরা একটি উদাহরণের মাধ্যমে বিষয়টিকে আপনাদের মাঝে সহজ করে দেই।

একটি ইউটিউব চ্যানেলে আপনারা দেখে থাকবেন শুধু এক রকমের ভিডিও আপলোড দেওয়া হয়। ধরুন আপনি কোন এডুকেশনাল ওয়েবসাইটে বা youtube এ যাবেন তখন আপনারা দেখতে পারবেন সেখানে এডুকেশনাল ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে। সেখানে কিন্তু আর অন্য কোন ইউটিউব ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে না যেমন ফানি গান ইত্যাদি।

নিশ বলতে আমরা খুব সহজভাবে বলতে পারি যে কোন একটি বিষয়ের উপর বা যে কোন একটি বিষয়কে সিলেক্ট করে সে বিষয়টির উপর কন্টেন্ট বানানোকে নিশ বলে।

তো আপনারা চাইলে এরকম একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর কাজ করে সেটিকে নিশ হিসেবে সিলেক্ট করতে পারেন।

তো অনেকেই আছে এই বিষয়টি সিলেক্ট করতে তাদের নানারকম সমস্যা হয়ে থাকে। তারা নানারকম বিষয়বস্তু বুঝতে না পেরে ভুল সিলেক্ট করে এবং পরবর্তীতে তারা ভালোভাবে সফলতা অর্জন করতে পারে না।

তাহলে চলুন কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নিশ দেখে আসি এবং যেগুলোতে কাজ করলে আপনারা খুব সহজেই সফলতা অর্জন করতে পারবেন আশা করা যায়।

1. Funny-ফানি

সর্বপ্রথম আমরা যে নিশ নিয়ে কথা বলব সেটি হল ফানি ভিডিও। বর্তমান সময়ে আপনারা যদি সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে লক্ষ্য করেন তাহলে কিন্তু ফানি ভিডিওর একটি আলাদা কদর দেখতে পারবেন।আপনারা যে কোন ফানি ভিডিওতে ভালো পরিমাণে লাইক কমেন্ট শেয়ার দেখতে পারবেন।

আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নিশ হিসেবে সিলেক্ট করতে পারেন এই ফানি ভিডিও কে। বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় হচ্ছে এরকম ফানি টাইপের নানা রকম ভিডিও। তো আপনি নিজে বা অন্য কোন মাধ্যমে ফানি ভিডিও তৈরি করে সেগুলো আপনার youtube চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন।

2. Educational-শিক্ষা মূলক

এখন আমরা যে নিশ নিয়ে কথা বলব এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি নিশ। এডুকেশনাল বা শিক্ষামূলক বিষয়বস্তুকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য নিশ হিসেবে সিলেক্ট করতে পারেন আর এর জন্য আপনারা খুব সহজেই আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে রিচ করাতে পারবেন।

আমাদের দেশে প্রতিনিয়ত নানারকম ভাবে শিক্ষামূলক ভিডিও আপলোড করে অনেকেই তাদের ইউটিউব চ্যানেলটি গ্রো করছে।

গত দুই এক বছরে আমরা দেখেছি অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে অনেক শিক্ষার্থী তাদের ক্লাস কার্যক্রম চালিয়েছিল। আর এখন সেই ধারা অব্যাহত রেখে অনেকেই রয়েছে যারা ইউটিউব এর মাধ্যমে নানারকম বিষয় বস্তু প্রতিনিয়ত শিখছে তাদের এডুকেশনাল যে শিক্ষা ব্যবস্থা রয়েছে সেখান থেকে।

তো আপনি চাইলে শিক্ষামূলক নানা রকম ভিডিও কন্টেন্ট পাবলিশ করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে ভালো পজিশনে নিয়ে যেতে পারেন।

নোটঃএকটি বিষয়ে বলে রাখা ভালো আপনি যদি কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক হয়ে থাকেন তাহলে কিন্তু এই কাজটি আপনার জন্য আরও সহজ হয়ে যাবে।

আর আপনি যদি সাধারণ কোন লোকজন হয়ে থাকেন তাহলে কিন্তু আপনার এই ভিডিওগুলো সবাই গ্রহন করবে না। কেননা একজন শিক্ষকই পারে সবাইকে শিক্ষা দিতে।

এক্ষেত্রে আপনারা একটি পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন আপনারা চাইলে শিক্ষামূলক নানা রকম তথ্য নিয়ে ভিডিও পাবলিশ করতে পারেন।

এ বিষয়টি বর্তমান সময়ে খুবই একটি জনপ্রিয় বিষয় আপনারা চাইলে খুব সহজেই এই নিশ সিলেক্ট করে। আপনার ইউটিউব চ্যানেল ভালো মানের একটি চ্যানেল এবং সেখান থেকে ভালো পরিমাণের উপার্জন করতে পারবেন মনিটাইজেশনের মাধ্যমে।

3. Food blogging-ফুড ব্লগিং

বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় একটি নিশ হল ফুড ব্লগিং।

আপনারা নানারকম সোশ্যাল মিডিয়া হয়তো ফুড ব্লগিং সম্পর্কে নানা রকম কন্টেন্ট দেখেছেন বর্তমান সময়ে। আমরা একটি রিসার্চের মাধ্যমে দেখেছি খুব সহজে ফুড ব্লগিংয়ের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলকে গ্রো করতে পারেন।

বর্তমান সময়ে আপনারা যদি ফুড ব্লগিং কে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নিশ হিসেবে সিলেক্ট করেন তাহলে কিন্তু ভালো মানের ভিউ পাবেন।

আপনারা জানেন বর্তমান সময়ে এই বিষয়টিকে সবাই ভালোর চোখে দেখছে এবং আপনারা সবাই জানেন আমাদের বাংলাদেশ অনেক ফুড ব্লগার রয়েছে যারা তাদের ইউটিউব চ্যানেলটি খুব সহজে ফুড ব্লগিংয়ের মাধ্যমে গ্রো করে তুলেছে।

4.Cartoon-Cartoon-কার্টুন ভিডিও

ছোট বাচ্চারা কার্টুন এর মাধ্যমে বিনোদন পায় আমরা এ বিষয়টি সবাই জানি এবং আমরা আমাদের ছোটবেলায় নানা রকম কার্টুন দেখেছি।

তো এখনকার এই বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে আপনারা যদি কার্টুন নিশ আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য সিলেক্ট করেন তাহলে কিন্তু আপনারা বুঝতেই পারছেন কিভাবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি গ্রো করবে।

আপনারা একবার মনে করে দেখুন আমরা ছোটবেলায় কত পরিমানের কার্টুন দেখে ছিলাম। এখন আপনি যদি সেই বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে ভালো মানের কার্টুন ভিডিও আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য তৈরি করতে পারেন তাহলে কিন্তু মনিটাইজেশনের মাধ্যমে খুব সহজে ভালো পরিমাণের উপার্জন করতে পারবেন এবং আপনারা আপনাদের চ্যানেলকে সফলতার চূড়ায় পৌঁছাতে পারবো।

শেষ কথা!

উপরের আলোচনায় দেখতে পারছেন আপনারা আজকে আমরা ইউটিউব চ্যানেলের জন্য চারটি নিশ নিয়ে আলোচনা করেছি। আশা করি আপনারা এই চারটি নিশ এর মধ্যে যে কোন একটি নিশ নিয়ে কাজ করলে খুব সহজেই সফলতার সাথে ইউটিউব জার্নি করতে পারবেন।

তো আপনাদের জন্য দোয়া এবং ভালোবাসা রইলো আপনারা যেন খুব সহজে আপনাদের youtube চ্যানেলকে ভালো পর্যায় নিয়ে যেতে পারেন। আজকে আমাদের যেতে হচ্ছে আল্লাহ হাফেজ!!

Leave a Reply

Your email address will not be published.