স্বাস্থ্য

পাইলস থেকে চিরতরে মুক্তির উপায়| অর্শ থেকে মুক্তির উপায়

পাইলস থেকে মুক্তির উপায়: সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা আজকে আমরা কথা বলব পাইলস থেকে কিভাবে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। বর্তমানে পাইলসের জন্য নানা ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থা বের হয়েছে। পাইলসের সমস্যা কতটা তার উপরে ডিপেন্ড করে চিকিৎসা দেওয়া কখনো শুধু ওষুধে কাজ হয় আবার কখনো কখনো পাইলস বা অর্শ সমস্যা এতটাই বেড়ে যায় যে অপারেশন করা ছাড়া আর কোন উপায় থাকেনা।

কিন্তু বন্ধুরা সব সমস্যার জন্য কিছু কিছু নির্দিষ্ট টোটকা আছে যেটা খুবই উপকারী সেগুলো নিয়ে আমাদের আজকের টিপস তাহলে চলুন বন্ধুরা দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক।

মুলার জুস

বন্ধুরা মুলা এমন একটি শব্দ যেটা সবস থাকে। আর এই সবজি পাইলস বা অর্শ্ব এর জন্য অত্যন্ত উপকারী। আপনারা যদি এই মুলার জুস খান তাহলে অশ্ব বা পাইলস এর ক্ষেত্রে অনেকটা উপকার পাবেন। প্রথমদিকে মুলার রস খেতে আপনাদের অনেক কষ্ট হবে তাই প্রথমদিকে তিন ভাগের এক ভাগ দিয়ে শুরু করবেন আস্তে আস্তে বাড়িয়ে হাফ কাপ আসতে পারবেন। আপনারা যদি নিয়মিত মুলার জুস খেতে পারেন তাহলে আপনারা পাইলস বা অর্শ এর সমাধান পেতে পারেন।

পাইলস থেকে চিরতরে মুক্তির উপায়, লেবু ও আদার রস

বন্ধুরা পাইলস এর অন্যতম প্রধান কারণ হলো ডিহাইড্র আপনারা যদি আদা ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয় এর মধ্যে এক চামচ মধু দিয়ে দিনে দুব পান করেন তাহলে আপনাদের পাইলস এর ক্ষেত্রে অনেক উপকার হবে। কারণ এই শরবত শরীরকে হাইড্রেট করতে সাহায্য করে এবং সেই সাথে সমস্যার সমাধান করে।

ঘরোয়া উপায়ে পাইলস সারানোর উপায়। মলত্যাগের সময় বসার ধরন | পাইলস থেকে চিরতরে মুক্তির উপায় অনেকে ভুল পদ্ধতিতে মলত্যাগ করে থাকেন। অনেক সময় ভুল পদ্ধতিতে কমোডে বসার ফলে তাপের প্রয়োজন হয়। তাই যখন আপনারা কম মলত্যাগ করবেন তখন পায়ের নিচে একট রাখেন। আপনারা যখন কমোডে মলত্যাগ করবেন তখন একটু সামনের দিকে ঝুঁকে বসতে হবে। এতে বৃহদন্ত্রে কম চাপ পড়বে আর আপনারা পাইলস না হওয়ার সমস্যা থেকে দূরে থাকবেন।

কাঁচা পেঁয়াজ

বন্ধুরা কাঁচা পেঁয়াজ আপনারা যদি খান তাহলে আপনাদের মলদ্বার থেকে পাইলস অনেকটাই কমে যাবে। কাঁচা পেঁয়াজ শুধু পড়া কমাবে না কাঁচা পেঁয়াজ অন্ত্ক মাতে অনেকটা সাহায্য করবে।

বেদানা

পাঠক বন্ধুরা বেদানা ফল ও আপনাদের পাইলসের সমস্যার সমাধান দিতে পারে। প্রথমে বেদানার দানা গুলো ভালো করে ধুয়ে সেটা পানিতে ভালো করে ফোটাতে হবে যতক্ষণ না পানির রং বদলে। যতক্ষণ না পানির বেদনার কালারের মত হয় ততক্ষণ পর্যন্ত পানি ফুটিয়ে যেতে হবে। তারপরে পানি ঠান্ডা করে ছেঁকে নিতে হবে । তাহলেই আপনারা আপনাদের পাইলসের সমস্য থেকে অনেকটাই মুক্তি পাবেন।

ডুমুর

বন্ধুরা পাইলসের সমস্যা সমাধানে অনেকটাই কাজ করে থাকে ডুমুর। এজন্য আপনাদেরকে কি করতে নিয়ে এক গ্লাস পানিতে সারারাত ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরের দিন সকালে উঠে এই ডুমুর ভেজানো পানি অর্ধেক খেয়ে নিতে হবে আর বাকি অর্ধে হবে বিকেলে। কিছুদিন খাওয়ার পরে আপনারা নিজেই বুঝতে পারবেন যে আপনারা কতটা উপকারিতা পেয়েছেন।

হলুদ

হলুদ পাইলস বা অর্শ সমস্যার অনেক কাজে লাগে। এজন্য আপনাদেরকে কি করতে হবে কাঁচ হলুদ পানিতে দিয়ে ভালো করে পানিকে ফোটাতে হবে। আরে ফোটানো পানি আপনাদেরকে নিয়মিত পান করতে হবে। আপনারা যদি এই ফুটানো পানি নিয়মিত পান করেন তাহলে পাইলসের সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি পাবেন।

কলা

বন্ধুরা কলা কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা সমাধানে উপকারী এবং ভালো একটা ও মলত্যাগ করতে সাহায্য করে । মলত্যাগ করার সময় মলদ্বারে কোন রকমের কোন চাপ পড়ে না। যার কারণে পাইল যাওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। আরও যদি সয়াবিনের দুধ দিয়ে খান তাহলে আরো তাড়াতাড় উপকার পাবেন।

ওয়ার্কআউট

বন্ধুরা এমন কিছু ওয়ার্কআউট রয়েছে যা নিয়মিত করলে আপনাদের পাইলসের সমস্যা অনেকটাই মুক্তি পেতে পারেন। শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে চাইলে আপনাদেরকে নিয়মিত ওয়ার্কআউট করতে হবে। তবে একটা জিনিস মাথায় ওয়ার্ক আউট করার সময় খুব বেশি পরিশ্রম বা ভারি জিনিস তোলা যাবে না কারণ এ সমস্যা বাড়াতে পারে। সাইকেল চালানো, সাঁত কাটার মত হালকা যে ওয়ার্কআউট সেগুলো করতে পারেন।

ডাল

বন্ধুরা পাইলসের সমস্যা সমাধানের জন্য খুবই উপকারী হলো ডাল। পাইলসের সমস্যার সমাধান যে ডালগুলো করে সেগুলো হলো তিসী ডাল, খেসারি ডাল, মসুর ডাল এ ধরনের সমস্যা সমাধানে খুবই সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.