টিপস

ফ্রিজ পরিষ্কার করার সঠিক পদ্ধতি। ফ্রিজ পরিষ্কার করার নিয়ম

ফ্রিজ পরিষ্কার করার পদ্ধতি: সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা দীর্ঘ সময় ধরে খাবার সংরক্ষণ করার জন্য আমরা ফিজ ব্যবহার করে থাকি। নানান ধরনের খাবার ফ্রিজে রাখার মাধ্যমে ফ্রিজে অনেক সময় দুর্গন্ধ হতে পারে। অন্যদিকে খাবার পুরনো হয়ে গেলে ফ্রিজের অন্য খাবারের ওপর তার প্রভাব পড়ে। খাবার সংরক্ষণের জন্য নিয়মিত ফ্রিজ পরিষ্কার করা অত্যন্ত জরুরি। কারন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবারের পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। বন্ধুরা ফ্রিজ পরিষ্কার করার কিছু নিয়ম রয়েছে। তাহলে চলুন বন্ধুরা জেনে নেওয়া যাক ফ্রিজ পরিষ্কার করার পদ্ধতি, কিভাবে ফ্রীজ পরিষ্কার করবেন।

খালি করা

প্রথমেই ফ্রিজ পরিষ্কারের সময় খাবারের পাত্র, কন্টেইনার, পানি বা কোকের বোতল বের করে রাখতে হবে। সম্পুর্ন ফ্রিজটি খালি করে নিতে হবে। বেশি পুরনো খাবার থাকলে তা ফেলে দিতে হবে। পরিষ্কার করার কাজ শুরুর আগে অবশ্যই ফ্রিজের সুইচ অফ করে রাখতে হবে। কারণ ফ্রিজ পরিষ্কার করার সময় অসাবধানতায় ইলেক্ট্রনিক সকেটে হাত লেগে ঘটতে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এছাড়া খাবার সরানোর সময় বরফ জমানোর ট্রেগুলোও সরিয়ে রাখতে হবে।

বরফ সরিয়ে ফেলা

ফ্রিজের সব জিনিস সরিয়ে ফেলার পর ফ্রীজে আটকে থাকা বরফ সরিয়ে ফেলতে হবে। এর জন্য ফ্রিজের পাওয়ার লাইনটি বিচ্ছিন্ন করে রাখতে হবে। কমপক্ষে আধাঘণ্টা ফ্রিজ বন্ধ অবস্থায় রাখলে বরফ গলে যায়।

শুকনো কাগজ ব্যবহার করা

বন্ধুরা অনেক সময় দেখা যায় ফ্রিজের গায়ে শক্তভাবে লেপ্টে থাকে কিছু বরফ। ফ্রিজ থেকে শুকনো কাগজের সাহায্যে সেসব বরফ তুলে নেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ফ্রিজ ডিপফ্রন্ট মোডে নিয়ে যেতে হবে। এ অবস্থায় ফ্রিজের সব বরফ গলে যাবে। তারপর কাগজগুলো বের করে নিতে হবে।

পরিষ্কার করা

ফ্রীজ থেকে সব বরফ সরানোর পর এবার ফ্রিজটি পরিষ্কার করতে হবে। গরম পানিতে ভিনেগার মিশিয়ে একটি স্পঞ্জ দিয়ে ফ্রিজের ভেতরে খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে। অবশ্যই খেয়াল রাখবেন, ফ্রিজের ভেতর যেন কোনো ময়লা না থাকে। পরিষ্কারের সুবিধার জন্য অনেকেই অব্যবহৃত টুথব্রাশ ব্যবহার করে থাকেন। ফ্রিজের ড্রয়ারগুলো খুলে নিয়ে পানিতে ভিজিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। ফ্রিজের দরজা ও বাইরের অংশও পরিষ্কার করতে হবে।

গন্ধ দূর করা

বন্ধুরা ফ্রীজে দুর্গন্ধ থাকলে ফ্রিজের ভেতরের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য বেকিং সোডা কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখতে হবে। ৫ থেকে ১০ মিনিট বেকিং সোডা লাগিয়ে রেখে ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিতে হবে। এর মাধ্যমে দুর্গন্ধ দূর হয়ে যাবে।

ফ্রিজ মুছা

ফ্রীজ পরিষ্কারের পালা শেষ হয়ে গেলে এবার তোয়ালে দিয়ে ফ্রিজটি মুছে ফেলতে হবে। খুলে ফেলা ড্রয়ারগুলোও মুছে ফেলতে হবে। ফ্রিজের কোনো অংশ ভেজা রয়েছে কি না তা বারবার চেক করে নিতে হবে। যে কাপড় দিয়ে ফ্রিজ মুছবেন সে কাপড় হালকা গরম পানিতে ডুবিয়ে মুছতে হবে। মোছার পর ফ্রিজের পাল্লা ঘণ্টাখানেক খোলা রাখতে হবে এতে দুর্গন্ধ দূর হয়ে যাবে। এরপরেও যদি দুর্গন্ধ থাকে তাহলে গরম পানিতে লবণ ও সোডা মিশিয়ে আরও একবার মুছতে হবে।

ফ্রিজের বাইরের অংশ পরিষ্কার করা

ফ্রিজের ভেতরের মতো এর বাইরেটাও পরিষ্কার রাখা অত্যন্ত জরুরি কারণ ফ্রিজের দরজা খুলতে গিয়ে হাতের ময়লা লেগে ফ্রিজ নোংরা হয়ে যেতে পারে। তাই ফ্রিজের হাতলে কভার ব্যবহার করতে পারেন। গ্লাস ক্লিনার দিয়ে ফ্রিজের বাইরের অংশ পরিষ্কার করতে হবে। ফ্রিজ সাজানোর জন্য পছন্দের যেকোনো স্টিকার ও ব্যবহার করতে পারেন।

ফ্রিজ পরিষ্কারের কিছু টিপস

১. ডিপ ফ্রিজ পরিষ্কার করার জন্য মাইক্রো-ফাইবারযুক্ত কাপড় ব্যবহার করতে হবে। ডিপ ফ্রিজে অতিরিক্ত বরফ জমে থাকার কারণে অনেক সময় দুর্গন্ধ বেশি ছড়ায়। বেশিরভাগ বাসায় ফ্রিজের দুর্গন্ধের জন্য প্রধানত ডিপ ফ্রিজই দায়ী হয়ে থাকে। তাই ডিপ ফ্রিজ ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

২. দীর্ঘদিন ফ্রিজে টক দই রাখলেও দুর্গন্ধ তৈরি হয়। এই দুর্গন্ধ থেকে বাঁচার জন্য ফ্রিজের ভেতর একটি ছোট বাটিতে অল্প কিছু চুন রেখে দিতে হবে। এছাড়া ফ্রিজে লেবুর কয়েক টুকরা রাখলেও দুর্গন্ধের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

৩. ফ্রিজ ধোয়া-মোছার কাজ শেষ হয়ে গেলে বাইরে থাকা খাবার আবার ফ্রিজে তুলে রাখতে হবে। ড্রয়ারগুলো আবার ফ্রিজের মধ্যে যথাস্থানে রাখতে হবে। এরপর মাছ-মাংস, শাক-সবজি আলাদাভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.